ঘুমের সময় অন্তর্বাস নয়

প্রকাশিত

ডেস্ক: নারীদের পোশাক-পরিচ্ছদ পরিধানের সঙ্গে আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে অন্তর্বাস। অন্তর্বাস পরিধান নারীদের সৌন্দর্য বাড়ায়। তবে অন্তর্বাস ব্যবহারের ফলে নারীদের বিভিন্ন ধরনের সমস্যা হয়ে থাকে। কিন্তু অনেক নারী বিষয়টি জানেন না; জানতেও চান না। কিন্তু অজানা থেকে আপনি পড়তে পারেন মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে।

অনেক নারী আছেন, যারা ঘুমানোর সময় অন্তর্বাস পরে ঘুমান। এটা মোটেই ঠিক নয়, কারণ ঘুমানোর সময় অন্তর্বাস পরে ঘুমালে তাতে স্বাস্থ্য ঝুঁকি রয়েছে।

অন্তর্বাস পরা নিয়ে যুগান্তরকে বিভিন্ন বিষয় জানিয়েছেন সেন্ট্রাল হাসপাতাল লিমিটেডের গাইনি কনসালটেন্ট বেদৌরা শারমিন।

গাইনি কনসালটেন্ট বেদৌরা শারমিন যুগান্তরকে বলেন, অন্তর্বাস পরিধানে স্বাস্থ্য ঝুঁকি রয়েছে। বিশেষ করে ঘুমানোর সময় অন্তর্বাস না পরা ভালো। কারণ ঘুমের সময় সব সময় ঢিলেঢালা পোশাক পরতে হয়। মনে রাখবেন আপনি যখন ঘুমাবেন তখন আরামদায়ক পোশাক আপনার শরীরের জন্য ভালো।

তিনি বলেন, সিনথেটিক কাপড়ের অন্তর্বাস না ভালো। সুতি হলে ভালো হয়। শক্ত বা বেশি ফিটিং অন্তর্বাস পরা উচিত নয়। অনেক নারীই মনে করেন অন্তর্বাস ব্যবহারের ফলে ব্রেস্ট ক্যান্সার হতে পারে, এই ধারণা ভুল।অন্তর্বাস পরলে কোনো ক্ষতি নাই, তবে ঘুমানোর আগে অবশ্যই খুলে রাখতে হবে।

আসুন জেনে নেই কীভাবে ব্যবহার করবেন অন্তর্বাস-

ঘুমের সময় অন্তর্বাস নয়

ঘুমের সময় ঢিলেঢালা পোশক পরে ঘুমানো উচিত। আর ঘুমের সময় অবশ্যই অন্তর্বাস খুলে ঘুমাতে হবে। এটি স্বাস্থ্যের জন্য ভালো।

সিনথেটিক নয়, সুতি অন্তর্বাস

অন্তর্বাস ব্যবহারের ফলে কোনো ধরনের শারীরিক মস্যা হয় না। তবে অন্তর্বাস ব্যবহারের ক্ষেত্রে সুতি অন্তর্বাস ভালো। আর অরেকটি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে, তা যেন অবশ্যই খুব বেশি ফিটিং না হয়।

নন-ক্যান্সারাস ল্যাম্প

সিস্ট এবং ল্যাম্প হলো নন-ক্যান্সারাস টিস্যু। অতিরিক্ত টাইট ফিটিংয়ের ব্রা পরে নিয়মিত রাতে ঘুমানোর অভ্যাস থাকলে ব্রেস্টে সিস্ট এবং নন-ক্যান্সারাস ল্যাম্পের সৃষ্টি হতে পারে, যা পরবর্তীতে নানা রকম সমস্যা করে।

রক্ত চলাচলে ব্যাঘাত

রাতে অন্তর্বাস পরে ঘুমালে রক্ত চলাচলে ব্যাঘাত ঘটার সম্ভাবনা থাকে। বিশেষ করে অতিরিক্ত টাইট ইলাস্টিক থাকলে স্বাভাবিক রক্ত চলাচলে ব্যাঘাত ঘটে। ফলে স্বাস্থ্যের ক্ষতি হয়।

ত্বকে দাগ বসে যায়

নিয়মিত অন্তর্বাস পরে ঘুমালে ত্বকে অন্তর্বাসের ইলাস্টিকের দাগ বসে যেতে পারে। বিশেষ করে অতিরিক্ত টাইট ইলাস্টিক হলে দাগ পড়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। তাই রাতে ঘুমানোর সময়ে অন্তর্বাস না পরাই ভালো।

ঘুমে ব্যাঘাত ঘটে

অতিরিক্ত টাইট অন্তর্বাস পরে আপনি অস্বস্তিবোধ করবেন এবং রাতে ঘুমে ব্যাঘাত ঘটতে পারে। ঘুম ভালো না হলে আপনার শরীরে ক্লান্তি রয়ে যাবে। শরীর খরাপ করতে পারে।

ত্বক চুলকাতে পারে

টাইট ফিটিং অন্তর্বাস পরে ঘুমালে রাতে ত্বকে চুলকানি অনুভূত হতে পারে। তাই বিশেষ করে সুতি কাপড়ের অন্তর্বাস পরার পরামর্শ দিয়েছেন গাইনি কনসালটেন্ট বেদৌরা শারমিন।