রাজিন হত্যা : আরেক আসামি গ্রেপ্তার

প্রকাশিত

খুলনা প্রতিবেদক: খুলনায় স্কুলছাত্র ফাহমিদ তানভীর রাজিন হত্যার অন্যতম আসামি সাব্বির হাওলাদারকে (১৩) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোমবার বিকেলে খুলনার রূপসা উপজেলার আইজগাতি গ্রামস্থ মামার বাড়ি থেকে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। পরে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী হত্যায় ব্যবহৃত রক্তমাখা ছুরি উদ্ধার করা হয়।

আগে গ্রেপ্তার পাঁচজনকে সোমবার দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়। তারা হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। তবে পুলিশ মামলার ১ নম্বর আসামি ফাহিম ইসলাম মনিকে এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

আরো পড়ুন :  সিলেটে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে যুবক আহত

খালিশপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সরদার মোশাররফ হোসেন জানান, গ্রেপ্তারকৃতদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী রাজিন হত্যার মূল কিলার সাব্বিরকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী নগরীর বয়রা ইসলামিয়া কলেজ রোডের শ্মশান ঘাটের বাড়ি থেকে কাগজে মোড়ানো রক্তমাখা ছুরি উদ্ধার করা হয়। সাব্বির শ্মশান ঘাটস্থ জালাল হাওলাদারের ছেলে।

তিনি জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সাব্বিরসহ গ্রেপ্তারকৃতরা রাজিন হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। ১ নম্বর আসামি ফাহিম ইসলাম মনিকেও গ্রেপ্তার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

আরো পড়ুন :  বাংলাদেশের ঠাকুরগাঁওয়ে পরকীয়ার অভিযোগে সালিশ এবং গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

গত শনিবার রাত সোয়া ৯টায় খুলনা পাবলিক কলেজ ক্যাম্পাসে কনসার্ট চলাকালে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয় ফাহমিদ তানভীর রাজিনকে। খুলনা পাবলিক কলেজের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র ছিল রাজিন। এ ঘটনায় রাজিনের বাবা শেখ জাহাঙ্গীর আলম বাদী হয়ে খালিশপুর থানায় ছয়জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত ৮-১০ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন।

এ ঘটনায় পুলিশ নগরীর মুজগুন্নি আবাসিক এলাকার বাসিন্দা ও সেনা সদস্য আলমগীর হোসেনের ছেলে আসিফ প্রান্ত আলিফ (১৬), নগরীর বড় বয়রার আফজালের মোড় এলাকার জাকির হোসেন খানের ছেলে মো. জিসান খান ওরফে জিসান পারভেজ (১৬), বড় বয়রা এলাকার মো. আহাদ হোসেনের ছেলে তারিন হাসান ওরফে রিজভী (১৩), রায়েরমহল মুন্সিবাড়ীর চিনির ভাড়াটিয়া সাইদ ইসলামের ছেলে মো. সানি ইসলাম ওরফে আপন (১৩), বড় বয়রা সবুরের মোড় এলাকার লিয়াকত হোসেনের ছেলে রয়েলকে (১৪) গ্রেপ্তার করেছে।