ইউরোপে খালেদা জিয়ার সাথে ঢালী নাসির উদ্দিনের সৌজন্য সাক্ষাত

প্রকাশিত

ইউরোপ প্রতিনিধি:
দেশে যখন বাকস্বাধীনতা নেই, নেই কোন গণতন্ত্র; সেই সময় দেশের বাইরে থেকে বাংলাদেশে অধিকার আন্দোলনের সংগ্রামে কাজ করে যাচ্ছেন তারাও গনতন্ত্রমুক্তির শক্তি; বললেন বিএনপি‘র চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া।
বর্তমান সরকারের সকল অপকর্মের বিরুদ্ধে সংগ্রাম যুদ্ধে ইতালীর অগ্রনায়ক ঢালী নাসির উদ্দিন সাংগঠনিক কাজে সংক্ষিপ্ত বাংলাদেশকালে দলীয় প্রধান বেগম খালেদা জিয়ার সাথে সৌজন্য সাক্ষাতে তিনি এ কথা বলেন। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল, ইতালীর সংগ্রামী সাধারণ সম্পাদক হিসাবে ঢালী নাসির উদ্দিন শুধু ইতালীর নয়, দলের নেতাকর্মী উজ্জীবিত করে রেখেছেন সারা ইউরোপ জুড়ে।
যার নির্দেশ পালন করে গণতন্ত্রের মুক্তির কথা প্রবাসীদের জানান দিচ্ছেন, দেশের বর্তমান পরিস্থিতি তুলে ধরে সাধারণ মানুষের অধিকার আদায়ে অবিরাম কাজ করে যাচ্ছেন সেই আপোসহীন দেশনেত্রী, বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার সাথে সোমবার তার কার্যালয়ে স্বাক্ষাতের কথা জানান ইতালী বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ঢালী নাসির উদ্দিন ।
প্রিয় নেত্রীর কাছে দীর্ঘ প্রায় ২০ মিনিটে ইতালী সহ পুরো ইউরোপের বাস্তব চিত্র তুলে ধরেন এই সংগ্রামী নেতা। তিনি বলেন, প্রবাসীরা বর্তমান সরকারের অপকর্মের মহামারী নিয়ে অবগত আছেন আর তাই অবৈধ্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সহ তার অবৈধ্য মন্ত্রী সভার যে যেখানেই যাচ্ছে তাদেরকে প্রতিরোধ করা হচ্ছে। আগামী ১২ ফেব্রুয়ারী ইতালীর রোমে সর্বোচ্চ প্রতিরোধের ব্যবস্থা করা হয়ে হয়েছে। এমনকি ইতালীয়ান প্রশাসন সহ বিভিন্ন দেশের দূতাবাস সমূহে এই অবৈধ্য সরকার এবং তার সকল কার্যক্রম তুলে ধরে স্বারকলিপি দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।
নাসির উদ্দিন এসময় তার প্রাণপ্রিয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অবাক করে দিয়ে বলেন, দেশে গণতন্ত্রের নামে ভোটাধিকার ছিনিয়ে নেয়া, মানবতার নামে মানবাধিকার হরণ কিংবা স্বাধীন দেশে বাকস্বাধীনতাকে গলা টিপে হত্যা করার জন্য শেখ হাসিনা অবশ্যই নোবেল বিজয়ী হবেন আর তা কেউ আটকাতে পারবে না।
এসময় বেগম খালেদা জিয়া বলেন, সকল নেতাকর্মীর খরব তিনি রাখছেন, বিশেষ করে প্রবাস থেকে যারা গণতন্ত্র রক্ষায় মানুষের ভোটাধিকার ফিরিয়ে দিয়ে আওয়াজ তুলছেন। বেগম জিয়া ইতালীসহ জাতীয়তাবাদী আর্দশের সকল প্রবাসীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার নির্দেশ দেন। তিনি প্রত্যাশা করেন, সকল নেতাকর্মীদের অংশগ্রহনে আগামী ফেব্রুয়ারীতে রোম শহরে কোন ব্যক্তি-গোষ্টিকে নয়, গণপ্রতিরোধ হোক দেশের ভোটাধিকার ফিরিয়ে আনার; গণতন্ত্র রক্ষার।