এরশাদনগরে শিক্ষককে কুপিয়ে জখম করার ঘটনায় থানায় মামলা

প্রকাশিত

তুহিন সারোয়ার,চ্যানেল সিক্সঃ- টঙ্গীর এরশাদনগরে স্কুলছাত্রকে শাসন করায় শিক্ষককে কুপিয়ে জখম করার অভিযোগে শিক্ষক বাদশা হোসেনের মা রৌশন আরা (৪৩) বাদী হয়ে টঙ্গী মডেল থানায় গতকাল মামলা দায়ের করেছেন। মামালা নং ৪৪/২০/০২/১৮।

মামলার প্রাথমিক তথ্য বিবরনীতে জানা যায় যে. টঙ্গীর এরশাদনগর চানকিরটেক এলাকায় অবস্থিত কবি মহসিন আইডিয়ার একাডেমি স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র আরমান হোসেন গত গত ১৯শে ফেব্রেুয়ারী বুধবার সকাল আনুমানিক ৯টার দিকে ক্লাসে বেয়াদবি করার কারনে একাডেমীর সহকারী শিক্ষিকা দুলি আক্তার শাসন করেন। বিষয়টি আরমান তার অভিভাবককে জানালে অভিভাবক স্কুল কর্তৃপক্ষকে বলে। এর পরিপ্রেক্ষিতে বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদ সালিশে শিক্ষিকার ত্রুটি না পেয়ে বিষয়টি মীমাংসা করে দেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে আরমানের লোকজন এরশাদনগর ৬নং ব্লক এর বাসিন্দা -বিবাদী ছাত্রলীগ নেতা ১,রাসেল(২৫) পিতা,আবঃরশীদ,ও শাহেন শাহ(২৫) পিতা ফরহাদ হোসেন,,জামাল ওরফে কাটা জামাল, পিতা,মোঃ রফিকুল ইসলামসহ আরও অগ্গাতনামা ১০/১২ জন দেশীও অস্ত্রসহ বৃহস্পতিবার সকাল আনুমানিক ১১টার দিকে উক্ত প্রতিষ্ঠানে পাঠদান চলাকালে হামলা চালিয়ে শিক্ষিকাকে শ্রেণিকক্ষ থেকে টেনেহেঁচড়ে লাঞ্ছিত করে। এবং শিক্ষিকা দুলি আক্তারকে লোহার রড় দিয়ে এলোপাথারী মারধর করে শ্লিলতাহানী করে তুলে নেবার সময় একই স্কুলের শিক্ষিক দুলি আক্তারের স্বামী বাদশা হোসেন বাধা দিলে বিবাদীগন এস,এস. পাইপ দিয়ে হত্যার উদ্যেশে মাথা বরাবর আঘাত করে রক্তাক্ত করে।এরপর শিক্ষিকা দুলি আক্তার এবং তার স্বামী বাদশা হোসেনের চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে বিবাদীরা তাদেরকে প্রাণ নাশের হুমকি দিয়ে চলে যায়।এরপর স্থানীয় লোকজন বাদশাকে টঙ্গী ৫৯ সয্যা সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করে ।

শিক্ষিকা দুলি আক্তার লাঞ্ছিত হওয়ার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্র আরমান এমনিতে উচ্ছৃঙ্খল, তার পর সে লেখাপড়াও করে না। ক্লাসে পড়া না পাড়ায় তাকে স্বাভাবিকভাবে কথায় শাসন করেছিলাম।এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ছাত্রের অভিভাবক কথিত ছাত্রলীগ নেতা মোঃ রাসেল ও তার লোকজন এ ঘটনা ঘটান। ঐ ঘটনায় এলাকায় ক্ষোভ ও উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস,আই, সিদ্দিকুর রহমান চ্যানেল সিক্সকে জানানঃ- আসামীদের গ্রেফতারের অভিযান চলছে, দ্রুত এদের গ্রেফতার করা হবে।

Shares
আরো পড়ুন :  মাসে ৭০ হাজার টাকা উপার্জন সম্ভব ৫ ঘন্টা কাজ করে!