নারীদের সাথে অসদাচরণ : পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ প্রত্যাহার

প্রকাশিত

সিরাজগঞ্জ সংবাদদাতা :

সিরাজগঞ্জ শহরের হোসেনপুর-জগন্নাথবাড়ী মহল্লায় বাড়িঘর ভাঙচুরের ঘটনায় নারীদের সাথে অসদাচরণের অভিযোগে ২নং পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মুস্তাফিজ হাসানকে স্ট্যান্ড রিলিজ (প্রত্যাহার) করা হয়েছে।

রোববার রাতে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মুস্তাফিজ হাসানকে প্রত্যাহার করে চৌহালী থানায় সংযুক্ত করা হয়েছে বলে জানালেন সিরাজগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইউসুফ আলী।

এর আগে বৃহস্পতিবার তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সিরাজগঞ্জ শহরের ধানবান্ধি মহল্লার মুক্তিযোদ্ধা মানিকের ছেলে সোহাগ হোসেনের সঙ্গে পুঠিয়াবাড়ী মহল্লার কয়েক যুবকের কথা কাটাকাটি হয়। এর জের ধরে সোহাগ হোসেনকে মারধর করেন ওই যুবকেরা। পরে সোহাগকে সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আরো পড়ুন :  ভবিষ্যৎ বলে দেন তাই ভিজিট ২০ হাজার টাকা!!

এ ঘটনার জের ধরে বৃহস্পতিবার থেকে শনিবার পর্যন্ত তিন দিন ধরে দুই মহল্লাবাসীর মধ্যে থেমে থেমে সংঘর্ষ হয়। রোববার সকাল থেকে উভয়পক্ষ সংঘবদ্ধ হয়ে আবারো সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। দুপুর পর্যন্ত দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত ১২ জন আহত হয়। এ সময় বেশ কয়েকটি বাড়িঘর ও দোকানপাটে হামলা ও ভাঙচুর করা হয়। এলাকার নারীদের সাথে অসদাচরণের অভিযোগ ওঠে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মুস্তাফিজ হাসানের বিরুদ্ধে।

আরো পড়ুন :  বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে আজ বাংলাদেশ বিশ্বে নেতৃত্ত দিতোঃ প্রধানমন্ত্রী

এ ঘটনায় সন্ধ্যায় মুস্তাফিজ হাসানের বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর স্বাক্ষরিত একটি লিখিত অভিযোগ সিরাজগঞ্জ প্রেসক্লাব বরাবর দাখিল করা হয়। অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, সিরাজগঞ্জের হোসেনপুর জগন্নাথবাড়ী মহল্লায় ২নং পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জের নেতৃত্বে সাধারণ মানুষের বাড়িঘরে ভাঙচুর, বাড়িঘরের ভেতরে প্রবেশ করে গর্ভবতী নারীদের ওপর অমানবিক নির্যাতন করা হয়।