লেবানন প্রবাসী বাংলাদেশির অকাল মৃত্যু

প্রকাশিত

ওয়াসীম আকরাম লেবানন থেকে: লেবানন প্রবাসী বাংলাদেশি নজরুল ইসলাম ইন্তেকাল। (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্নালিল্লাহে রাজিউন) লেবাননে হৃদরোগ, প্যারালাইজড আক্রান্ত হয়ে, সড়ক দুর্ঘটনা, হত্যাসহ আকস্মিক মৃত্যুর বেড়ে গেছে। নিজ দেশের ভূখন্ড ছেড়ে জীবন-জীবিকার তাগিদে পরবাসে ঠাঁই নেন প্রবাসীরা। দেশের মায়া ত্যাগ করে হাজার মাইল দূরে শ্রম বিক্রি করা এই প্রবাসীরা স্বপ্ন পূরণের আশায় কাজ করেন বছরের পর বছর। সবারই লক্ষ্য থাকে অর্থনৈতিক স্বাবলম্বী হয়ে ফিরে আসবেন দেশে। অথচ শ্রম বিক্রিতে ব্যস্ত প্রবাসীদের কর্মক্ষমতার পাশাপাশি কমতে থাকে আয়ুষ্কাল। এমনটাই হল নজরুলের।

আরো পড়ুন :  ‘ওরাল সেক্স’ ভয়ঙ্কর মাত্রার ব্যাকটেরিয়া ছড়াচ্ছে : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

নাম : নজরুল ইসলাম পিতা গিয়াস উদ্দিন দেশের বাড়ী কুড়িগ্রাম দীর্ঘদিন অসুস্থতা থেকে আজ (৪ এপ্রিল) ২ ঘটিকায় চিকিৎসা অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। নজরুল ইসলাম স্ট্রোক করে পড়ে যাওয়ার পর তার মালিক হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা সেবায় ডাক্তার জানায় নজরুলের পুরা শরীর প্যারালাইজড আক্রান্ত হয়ে গেছে।এর মধ্যে দীর্ঘদিন চিকিৎসাও দেওয়া হচ্ছে অন্যদিকে দেশে ফেরত পাঠানোর জন্য দূতাবাসের সহযোগিতা কামনা করেন। চলাফেরা করতে না ফারা এমন রোগী পাঠাইতে অনেক ঝামেলায় পড়তে হয়। এমন রোগীর সেবায়ও একজন সাথে যেতে হয়। দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত আবদুল মোতালেব সরকারের অশেষ সহযোগিতায় আজ বিকাল ৪ ঘটিকায় নজরুলের বিমান টিকেট প্রস্তুতি ছিল। বিধির নির্মম পরিহাস দেশে যাবে লাশ হয়ে। মুক্তিযুদ্ধা পুর্ণবাসন সোসাইটি ও যুবকমান্ড লেবানন সভাপতি আমির হোসেন জানান নজরুলের মরদেহ লেবানন স্থানীয় হাসপাতালের হিমাগারে রাখা হয়েছে। দূতাবাস সুত্রে জানা যায় নজরুল সম্পূর্ণ বৈধ ছিলেন। কিছু আইনি প্রক্রিয়া অতিদ্রুত সম্পন্ন করে স্বজনদের নিকট নজরুলের মৃতদেহ ফেরন করবে দূতাবাস। লেবানন প্রবাসীদের এমন মৃত্যুর বিষয়ে বিশিষ্ঠজনরা মনে করেন, ‘হৃদরোগ ও মৃত্যু ঝুঁকি কমাতে খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন, অতিরিক্ত চর্বিযুক্ত খাবার বাদ দেয়া, নিয়মিত ব্যায়াম ও বিনোদনের ব্যবস্থা করা, ব্লাড প্রেসার ও ডায়বেটিস চেক করাসহ রাস্তায় চলাফেরায় প্রবাসীদের সচেতন করতে কমিউনিটি সংগঠনগুলোর উদ্যোগী হওয়া প্রয়োজন।