প্রথম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ করল প্রাইভেট শিক্ষক!

প্রকাশিত

সিলেট : সিলেট মহানগরীতে গৃহশিক্ষকের হাতে প্রথম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, সিলেট নগরীর এয়ারপোর্ট থানা এলাকা থেকে ৮ বছর বয়সী ওই শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে মাহিন মিয়া (২০) নামে এক শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ।

শনিবার (৭ এপ্রিল) সন্ধ্যা রাতে এয়ারপোর্ট থানায় অভিযোগ করেন নির্যাতিতা ওই শিশুটির বাবা। এরপরে পুলিশি অভিযান চালিয়ে ওই দিন রাত ৯টার দিকে সিলেট নগরীর গোয়াবাড়ি জাহাঙ্গীরনগর এলাকা থেকে অভিযুক্ত মাহিন মিয়া গ্রেফতার করা হয়।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, রবিবার (১ এপ্রিল) থেকে গৃহশিক্ষক মাহিনের কাছে প্রাইভেট পড়া শুরু করে ওই শিশুটি। এরপর দিন সোমবার (২ এপ্রিল) রাত ৮টায় শিশুটি মাহিনের কাছে প্রাইভেট পড়তে গেলে তাকে ধর্ষণ করেন গৃহশিক্ষক নামের নরপশু মাহিন।

আরো পড়ুন :  ঢাকায় আর আসতে চায় না মুক্তামণি

বর্তমানে নির্যাতিতা ওই শিশুটি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসিতে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এ ব্যাপারে নির্যাতনের শিকার শিশুটির বাবা জানান, ওই ঘটনার দিন তিনি কাজের সুবাদে কুমিল্লায় অবস্থান করছিলেন। তার মেয়ে ওই এলাকার একটি মাদ্রাসায় ওয়ানে পড়ে। রবিবার (১ এপ্রিল) থেকে শিশুটি মাহিনের বাসায় গিয়ে প্রাইভেট পড়া শুরু করে। সোমবার (২ এপ্রিল) রাতে প্রাইভেট পড়তে গেলে তার শিশু কন্যাকে ধর্ষণ করেন মাহিন মিয়া।

যৌন নির্যাতনের পর রক্তাক্ত অবস্থায় শিশুটি তার মায়ের কাছে কান্না-কাটি করে পুরো ঘটনার বর্ণনা দেয়। শিশুটির বাবা শুক্রবার (৬ এপ্রিল) সিলেটে ফেরার পর মেয়েকে হাসপাতালে ভর্তি করেন। শনিবার (৭ এপ্রিল) সন্ধ্যায় এয়ারপোর্ট থানায় মামলা দায়ের করেন।

আরো পড়ুন :  গরমে ঘামেন বেশি? চিন্তা নেই আপনি তাহলে সম্পদশালী !!!

এ বিষয়ে সিলেট মহানগর পুলিশের বিমানবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোশাররফ হোসেন জানান, হাসপাতালের ওসিসি’র তথ্য প্রমাণসহ শিশুটির বাবার দেওয়া অভিযোগ পেয়ে মামলা নেয়া হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, মামলার পরপরই পুলিশ অভিযান চালিয়ে নগরীর গোয়াবাড়ি জাহাঙ্গীরনগর এলাকা থেকে মাহিন মিয়া নামে ওই প্রাইভেট শিক্ষককে গ্রেফতার করে পুলিশ।

9Shares