মা-বাবার মৃত্যুর ৪ বছর পর শিশুর জন্ম

প্রকাশিত

ডেস্ক : গাড়ি দুর্ঘটনায় মা-বাবার মৃত্যুর চার বছর পর জন্মালো শিশু। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটির খবর জানিয়েছে চীনা গণমাধ্যমগুলো। খবর- বিবিসি ও সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের।

শেন লি এবং তার স্ত্রী লিউ শি ২০১৩ সালের মার্চ মাসে চীনের জিয়াংশু প্রদেশের ইয়েশিংয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হন। তবে, চীনা ওই দম্পতি ২০১৩ সালে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যাওয়ার আগে নিজেদের ডিম্বাণু এবং শুক্রাণু আইভিএফ এর মাধ্যমে সন্তান জন্মদানের জন্য সংগ্রহ করে রেখেছিলেন। আইভিএফ মানে হলো ইন ভিট্রো ফার্টিলাইজেশন, যে প্রক্রিয়ার ডিম্বাণু ও শুক্রাণু আলাদা করে সংগ্রহ করে বাইরে টেস্টটিউবের মাধ্যমে অথবা গর্ভ ভাড়া করে অন্য একজনের গর্ভে প্রতিস্থাপন করে সন্তান জন্মদান করা।

আরো পড়ুন :  বেনাপোল সীমান্তে ২০ নারী-পুরুষ ও শিশু আটক করেছে বেনাপোল আমড়াখালি চেকপোস্টর বিজিবি সদস্যরা

আইনি জটিলতার কারণে শিশুটি চীনের কোনো নারীর গর্ভে জন্মগ্রহণ করতে পারেনি। তবে জন্মদান প্রক্রিয়াটির অনুমতি পাওয়ার জন্য দম্পতির পিতা-মাতাকে দুইটি ভিন্ন ভিন্ন মামলা লড়তে হয়েছিল। মামলা লড়তে হয়েছিল কারণ চীনে এ সংক্রান্ত কোনও আইন এখনো চালু হয়নি। আর চীনে গর্ভ ভাড়া করা যেহেতু আইনত দণ্ডনীয়, তাই দম্পতির পিতামাতারা পার্শ্ববর্তী দেশ লাওস থেকে ২৭ বছর বয়স্ক এক নারীর গর্ভ ভাড়া নেন।

আরো পড়ুন :  জাতীয় গাজীপুরে জাতীয় বিশ্ব বিদ্যালয়ে বিশেষ সিনেট অধিবেশন

ছেলে সন্তানটির নাম রাখা হয়েছে শিয়ায়েনশিয়ান, মান্দারিন ভাষায় যেটার অর্থ মিষ্টি।

ছেলেটির জন্মের পর মৃত ওই দম্পতির পিতা-মাতা খুবই খুশী হন। ছেলেটির নানী হু শিংশিয়াং সংবাদমাধ্যমকে জানান, সে সবসময়ই হাসিমুখে থাকে। তার চোখ হয়েছে আমার মেয়ের মতো তবে দেখতে বাবার মতো হয়েছে।

শিশুটি বড় হলে তার জন্মের এই ঘটনাটি জানাবেন বলে জানালো তার দাদা দাদীরা। এর আগ পর্যন্ত তার বাবা-মা বিদেশ থাকেন বলে মিথ্যা অজুহাত দেখাবেন বলেও জানালেন তারা।