গোপালগঞ্জে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী-স্থানীয়দের সংঘর্ষ, আহত ২৫

প্রকাশিত

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) এক ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করাকে কেন্দ্র করে শিক্ষার্থী ও স্থানীয়দের মধ্যে সংঘর্ষে কমপক্ষে ২৫ জন আহত হয়েছে।

এ ঘটনায় বুধবার (৪ জুলাই) সন্ধ্যা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনের সড়ক অবরোধ করে রাখে। তারা স্থানীয়দের সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের গাড়ি ভাঙচুর, মোটরসাইকেল, মার্কেট ও দোকানপাটে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে।

বুধবার বিকেলে গোবরা গ্রামের স্থানীয় কয়েকজন যুবক ফুটবল খেলা শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের পুকুর থেকে গোসল করে ফেরার পথে এক ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এতে বাধা দিলে ওই যুবকদের সঙ্গে তাদের কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়। এতে ৫-৬ জন ছাত্র আহত হয়।

আরো পড়ুন :  ঠাকুরগাঁওয়ে ফুলকপির বাজার ধস!!

এ ঘটনা ক্যাম্পাসে ছড়িয়ে পড়লে সাধারণ শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনের সড়ক অবরোধ করে রাখে। মার্কেটে হামলা ও দোকানপাট ভাঙচুর করে। স্থানীয় লোকজন ছাত্রদের প্রতিহত করতে এলে দুইপক্ষের মধ্যে ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

একপর্যায়ে দুইপক্ষ সংঘর্ষে লিপ্ত হলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়, বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা পরিণত হয় রণক্ষেত্রে। উত্তেজিত শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে একটি মার্কেটে অগ্নিসংযোগ ও সোবহান সড়কে বেশ কয়েকটি দোকানে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর করে।

আরো পড়ুন :  ফরিদপুরের আ.লীগের দলীয় কোন্দলের জের ধরে যুবলীগ নেতার বাড়ীতে হামলা, ভাংচুর-লুটপাট

স্থানীয়রাও বিশ্ববিদ্যালয়ের গাড়ি ভাঙচুর ও ২-৩টি মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টাব্যাপী এ সংঘর্ষে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ২৫ জন আহত হয়। তাদের গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে চেষ্টা করে এবং ফায়ার সার্ভিস গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। ক্যাম্পাসে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। যেকোনো সময় পরিস্থিতি আবারও উত্তপ্ত হয়ে উঠতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

Shares