বিএনপির প্রতীকী অনশন কর্মসূচিতে নেতাকর্মীদের ঢল

প্রকাশিত

কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন স্থগিতের প্রতিবাদ এবং তার মুক্তির দাবিতে প্রতীকী অনশন কর্মসূচি শুরু করেছে। কর্মসূচিতে এই মুহূর্তে নেতাকর্মীদের ঢল নেমেছে। সকাল ১০টায় শুরু হওয়ার কথা থাকলেও নেতাকর্মীরা উপস্থিত হয় সকাল থেকেই।

আজ সোমবার সকাল ৯টায় রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চে এ কর্মসূচি শুরু হয়ে তা এখনো চলছে।

এ সময় নাট্যমঞ্চের সামনের সড়কে নানা স্লোগান দেন নেতাকর্মীরা। এর মধ্যে ছিল, জে‌লের তালা ভাঙব, খালেদা জিয়াকে আনব, আমার নেত্রী আমার মা জেলে থাকতে দেবো না’, ‘হামলা করে আন্দোলন- বন্ধ করা যাবে না’ ইত্যাদি।

আরো পড়ুন :  পরীক্ষা কেন্দ্রের সামনে মোবাইলফোনে পরীক্ষার প্রশ্ন দেখানোর সময়ে ২ প্রশ্নফাঁসকারী আটক

ইতোমধ্যে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ভাইচ- চেয়ারম্যান বেগম সেলিমা রহমান, চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, ড. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, জয়নাল আবেদীন ফারুক, আতাউর রহমান ঢালী, যুগ্ম-মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশার, ছাত্রদলের সভাপতি রাজিব আহসান, সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান ছাড়াও দলটির বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা অনশন কর্মসূচিতে উপস্থিত আছেন।

আরো পড়ুন :  ডাব খাওয়ার কথা বলে সন্তানকে পুঁতে ফেললেন বাবা

উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি বকশীবাজারে কারা অধিদপ্তরের প্যারেড গ্রাউন্ডে স্থাপিত ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক ড. মো. আখতারুজ্জামান মামলাটিতে খালেদা জিয়ার পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন। এ মামলায় পাঁচ বছরের দণ্ডের বিরুদ্ধে আপিল করে জামিন আবেদনের পর খালেদা জিয়াকে ১২ মার্চ চার মাসের জামিন দেন হাইকোর্ট। এর বিরুদ্ধে দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষের আপিলের পর গত ১৬ মে তা বহাল রেখে ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে আপিল নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়েছিলেন আদালত।

আরো পড়ুন :  বিকেলে শ্রীদেবীর শেষকৃত্য

এদিকে ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে খালেদা জিয়ার আপিল মামলাটি নিষ্পত্তি করতে আপিল বিভাগের আদেশ পুনর্বিবেচনা (রিভিউ) চেয়ে করা আবেদনের শুনানির জন্য আজকের কার্যতালিকায় এসেছে। এ ছাড়া কুমিল্লায় নাশকতার অভিযোগে বিশেষ ক্ষমতা আইনে করা মামলার কার্যক্রম বাতিল চেয়ে খালেদা জিয়ার করা আবেদনের ওপর শুনানি হয়েছে। রবিবার বিকালে দ্বিতীয় দিনের শুনানি শেষে আজ পর্যন্ত মুলতবি করেছেন হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ।