ভারতীয় তরুণীর ফাঁদে বাংলাদেশি যুবক, অতঃপর

প্রকাশিত

ডেস্ক রিপোর্ট: ফেসবুক অ্যাকাউন্টে ভুয়া সুন্দরী তরুণীর ছবি দেখে আলাপ, পরে প্রেম নিবেদন। এরপর সেই প্রেমিকার সাথে দেখা করতে অবৈধভাবে সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে প্রবেশ বাংলাদেশি যুবকের। অতঃপর অবৈধ অনুপ্রবেশের অভিযোগে পুলিশের জালে বাংলাদেশি প্রেমিক।

ভারতের কেরালা রাজ্যের ওয়ানাদ জেলার মেপ্পাদির এক নারী তার নিজের ফেসবুক প্রোফাইলে নিজের ছবির পরিবর্তে মালয়ালাম অভিনেত্রী কাব্য মাধবনের ছবি ব্যবহার করেন। আর ফেসবুকে সেই ছবি দেখেই ওই তরুণীর প্রেমে পড়েন বাংলাদেশি যুবক শাহিবুল খান। ফেসবুকেই ওই তরুণীকে মুখোমুখি সাক্ষাতের ইচ্ছা প্রকাশ করেন সাহিবুল। এরপর ওই তরুণীও তাতে সম্মতি জানিয়ে নিজের বাসার পৌঁছানোর পথনির্দেশ জানিয়ে দেন।

আরো পড়ুন :  মাহমুদউল্লাহর ব্যাটে চড়ে বাংলাদেশের ৫১৩

২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশ করেন ওই বাংলাদেশি যুবক। এরপর শাহিবুল কেরালার মেপ্পাদি শহরে ওই নারীর বাসাও খুঁজে পান। কিন্তু বাড়িতে ঢোকার সময়ই শাহিবুলকে প্রত্যাখান করেন ওই তরুণী। শাহিবুল বুঝতে পারেন যে ফেসবুকে যার ছবি দেখে তিনি প্রেমে পড়েছিলেন এই নারী তিনি নন। এরপর স্থানীয় বাসিন্দারাও শাহিবুলকে টেনে হিঁচড়ে বাইরে বের করে দেন। খবর দেওয়া হয় স্থানীয় পুলিশকেও। পরে ভারতে অবৈধ অনুপ্রবেশের অভিযোগে শাহিবুলকে আটক করা হয়।

সাজার মেয়াদ শেষে গত তিন মাস আগেই কারাগার থেকে ছাড়া পান শাহিবুল খান। তাকে দেশে ফেরত পাঠানোর যাবতীয় প্রক্রিয়াও শেষ। কিন্তু পোস্টাল হরতালের কারণে শাহিবুলের দেশে ফেরার যাত্রা বাতিল হয়। এই অবস্থায় দূতাবাস থেকে শাহিবুল যাতে দ্রুত ছাড়পত্রের নথি পায় সেই চেষ্টাই চালাচ্ছে মেপ্পাদি পুলিশের কর্মকর্তারা।

আরো পড়ুন :  একুশের প্রথম প্রহরে রাজধানীতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদীতে ফুল দিয়ে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

এই মুহূর্তে মেপ্পাদি পুলিশ আবাসনেই পুলিশি ঘেরাটোপে রয়েছেন শাহিবুল। পুলিশের তরফেই তাকে খাওয়া সরবরাহ করা হচ্ছে। মেপ্পাদি থানার সাব-ইন্সপেক্টর এস.জিতেশ জানান, দূতাবাস থেকে নথি এসে পৌঁছলেই শাহিদুলকে যত দ্রুত সম্ভব দেশে ফেরত পাঠানো হবে।

4Shares