বার্নিকাটের গাড়িতে হামলার বিচার চায় যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত

ডেস্ক : মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাটের গাড়িতে হামলার ঘটনায় জড়িতদের বিচার চেয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

গত শনিবার (৪ আগস্ট) রাজধানীর মোহাম্মদপুরে একটি নৈশভোজ শেষে ফেরার সময় ওই হামলার ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্র উদ্বেগ জানিয়েছে।

পাশাপাশি বার্নিকাটের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ সরকারকে অনুরোধ জানিয়েছে।

রবিবার (৫ আগস্ট) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে পাঠানো এক কূটনৈতিক পত্রে এ অনুরোধ জানায় যুক্তরাষ্ট্র।

এদিকে একই সময় সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজন সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদারের বাড়িতেও হামলার ঘটনা ঘটে। তবে দুই দিনেও ওই ঘটনায় কাউকে শনাক্ত করতে পারেনি পুলিশ। তবে পুলিশ বলছে, অপরাধীকে শনাক্তের চেষ্টায় তদন্ত চলছে।

এ ব্যাপারে বদিউল আলম মজুমদার বলেছেন, পুলিশ চাইলে অপরাধীদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনতে পারবে।

কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, বার্নিকাটের গাড়িতে হামলার বিবরণ দিয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশকে (ডিএমপি) দেয়া পত্রের একটি অনুলিপি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে দিয়েছে মার্কিন দূতাবাস। এতে বলা হয়েছে, নাগরিক অধিকার সংগঠন সুশাসনের জন্য নাগরিকের সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদারের বাসায় নৈশভোজে অংশ নেন মার্শা বার্নিকাট।

আরো পড়ুন :  সরকারি চাকরিজীবীদের জন্য চট্টগ্রামে ৪৫৬ ফ্ল্যাট

নৈশভোজ শেষে ফেরার পথে মোটরসাইকেল আরোহীসহ একদল সশস্ত্র লোক তার গাড়িতে হামলা চালায়।

এ বিষয়ে মোহাম্মদপুর থানার ওসি জামাল উদ্দিন মীর গণমাধ্যমকে জানান, ওই ঘটনায় বদিউল আলম মজুমদার রবিবার যে জিডি করেছেন, এতে তিনি কারও নাম উল্লেখ করেননি। আমরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি। তবে এখন পর্যন্ত এ ঘটনায় কোনো অপরাধীকে শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি।

তিনি বলেন, অপরাধী শনাক্ত হলে জিডিটি মামলায় রূপান্তর হবে। এদিকে সোমবার রাতে বদিউল আলম মজুমদার যুগান্তরকে বলেন, হামলার ঘটনার পর আমি মোহাম্মদপুর থানায় অভিযোগ করেছি। এরপর থেকে থানা পুলিশ আমার সঙ্গে কোনো রকম যোগাযোগ করেনি। তিনি বলেন, আমি মনে করি পুলিশ চাইলে অপরাধীকে শনাক্ত করে আইনের আওতায় নিয়ে আসতে পারবে।

আরো পড়ুন :  কানাডায় বেতন কমানোর দাবিতে ডাক্তারদের আন্দোলন

শনিবার রাত সাড়ে ১১টায় সুজন সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদারের মোহাম্মদপুরের ইকবাল রোডের বাসায় একটি নৈশভোজে অংশ নেয়া শেষে বের হওয়ার পর বার্নিকাটের গাড়িতে হামলা চালায় একদল সন্ত্রাসী। এরা বদিউল আলম মজুমদারের বাসায়ও হামলা-ভাংচুর করে। হামলার পর বদিউল আলম সাংবাদিকদের বলেন, আমার বাসায় যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত বার্নিকাটের উপস্থিতিতে একটি অনুষ্ঠান ছিল।

বাসা থেকে তিনি বেরিয়ে যাওয়ার সময় তার গাড়িতে হামলার চেষ্টা করা হয়। এরপর আমার বাড়িতে হামলা করে দুর্বৃত্তরা। তারা বাড়ির দরজা-জানালা ভাংচুর করেছে। বদিউল আলম মজুমদার রোববার মোহাম্মদপুর থানায় একটি অভিযোগ করেন। অভিযোগটি জিডি আকারে নেয় পুলিশ।

2Shares