স্বচ্ছতার অভিযোগ সত্ত্বেও নির্বাচনে মালদ্বীপ

প্রকাশিত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :আন্তর্জাতিকভাবে স্বচ্ছতার অভাব এবং বিরোধীদের নিপীড়নের অভিযোগের মধ্য দিয়ে রোববার মালদ্বীপে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে জাতীয় নির্বাচন। এই নির্বাচনের মাধ্যমে প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লা ইয়ামিন দ্বিতীয় দফায় ক্ষমতায় থাকতে চাচ্ছেন।

প্রথম দফায় বিতর্কিত নির্বাচনে ক্ষমতায় এসেই ইয়ামিন বিরোধীদের ওপর খড়গহস্ত হন। সন্ত্রাসবাদ থেকে শুরু করে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে বিরোধী দলের অধিকাংশ নেতাদের জেলে পাঠায় তার সরকার। দেশটিতে নতুন নির্বাচন বিধিমালাও প্রণয়ন করা হয়েছে। নতুন বিধি অনুযায়ী, পর্যবেক্ষকদের আলাদা করে ভোটারদের ব্যালটপেপার দেখার সুযোগ থাকছে না। এর ফলে ভোটের বৈধতা নিয়ে সন্দেহ দেখা দিতে পারে। এছাড়া বিদেশি সাংবাদিকদের ভোটের সংবাদ সংগ্রহের ব্যাপারেও কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে।

আরো পড়ুন :  রাবির ২ শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

প্রধান বিরোধী দর মালদ্বীপ ডেমোক্র্যাটিক পার্টি এবং স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষকরা বিদেশি সাংবাদিকদের ওপর কড়াকড়ি আরোপ এবং নির্বাচন কমিশন চূড়ান্ত ভোটার তালিকান প্রকাশ না করায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচের এশিয়া অঞ্চলের সহযোগী পরিচালক প্যাট্রিসিয়া গোসম্যান বলেছেন, ‘নির্বাচনের দিন প্রেসিডেন্ট ইয়ামিনের বিজয় নিশ্চিত করতে মালদ্বীপ কর্তৃপক্ষ সমালোচকদের আটক করেছে, গণমাধ্যমের ওপর কড়াকড়ি আরোপ করেছে এবং বিরোধী প্রার্থীদের ঠেকাতে নির্বাচন কমিশনের অপব্যবহার করেছে।’

আরো পড়ুন :  সাংবাদিক সাদ্দামের সহযোগিতায় নিখোঁজের ২৮ দিন পরে মা-বাবার কোলে শাকিল

স্বাধীন নির্বাচন পর্যবেক্ষক সংস্থা ট্রান্সপারেন্সি মালদ্বীপ বলেছে, ‘এই ইস্যুগুলোর সমাধান না করলে সম্ভবত এ ধরণের নির্বাচনের ফল জনগণ মেনে নিবে না।’

Shares