জামালপুরের নির্বাচনী মাঠে লড়তে প্রস্তুত হাইভোল্টেজ ৪ নারী প্রার্থী

প্রকাশিত

সৈকত আহমেদ বেলাল, জামালপুর-
জামালপুরের নির্বাচনী ৫ আসনের মধ্যে ৩ আসনে এমপি পদে ভোটের মাঠে সরাসরি লড়তে প্রস্তুত রয়েছেন হাইভোল্টেজ ৪ নারী প্রার্থী। এসব নারী এমপি প্রার্থীদের মধ্যে জামালপুর-১ (দেওয়ানগঞ্জ-বকশীগঞ্জ) আসনে বিএনপি’র কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য সাহিদা আক্তার রিতা, জামালপুর-২ (ইসলামপুর) আসনে সরকার দলীয় সংরক্ষিত এমপি, প্যানেল স্পীকার মাহজাবিন খালেদ বেবী, জামালপুর-৪ (জামালপুর সদর) আসনে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মারুফা আক্তার পপি ও বিএনপি‘র কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সাবেক সংরক্ষিত এমপি নিলুফার চৌধুরী মনি‘র নাম রয়েছে। তবে আওয়ামীলীগ ও বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী এসব নারী প্রার্থীদের মধ্যে জামালপুর-১ (দেওয়ানগঞ্জ-বকশীগঞ্জ) আসনে বিএনপি’র মনোনয়ন প্রত্যাশী সাহিদা আক্তার রিতা এবং জামালপুর-২ (ইসলামপুর) আসনে আওয়ামীলীগ মনোনয়ন প্রত্যাশী মাহজাবিন খালেদ বেবী গণসংযোগে এগিয়ে রয়েছেন বলে জানা গেছে।
জামালপুর-১ (দেওয়ানগঞ্জ-বকশীগঞ্জ) আসনে সাহিদা আক্তার রিতা এলাকায় বিভিন্ন সভা সমাবেশসহ গনসংযোগ চালাচ্ছেন। তিনি বলেন-১/১১ এর সরকারের সময় এ আসনে বিএনপির মনোনয়নে এমপি নির্বাচন করেছিলেন। তিনি বলেন, দলের দূর্দিনে তৃণমূল নেতাকর্মীদের নিয়ে আমি একা ধানের শীষের পক্ষে প্রায় ৯০ হাজার ভোট পেয়েছিলাম। দল আমাকে এবারও মনোনয়ন দেবে। সুষ্ঠ-নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে আমি ইনশাাল্লাহ জয়ী হবো।
জামালপুর-২ (ইসলামপুর) আসনে আওয়ামীলীগ মনোনয়ন প্রত্যাশী সেক্টর কমান্ডার মেজর জেনারেল খালেদ মোশারফ‘র (বীরোত্তম) কন্যা সংরক্ষিত মহিলা এমপি মাহজাবিন খালেদ বেবী এলাকায় বিদ্যুতায়ন, উঠান বৈঠক, সোলার বিতরণসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডের পাশাপাশি ব্যাপক গনসংযোগ চালাচ্ছেন। তার সমর্থকরা জানান, ভোটের রাজনীতিতে নারীদের সচেতন করতে বেবী ইতোমধ্যে গ্রামের সাধারণ নারীদের সাথে সহ¯্রাধিক উঠান বৈঠক করেছেন। এমপি বেবী বলেন, আমি আওয়ামী পরিবারের সদস্য। আমার বাবা খালেদ মোশারফ বঙ্গবন্ধু‘র নেতৃত্বে সরাসরি মুক্তিযোদ্ধে অংশ নিয়ে এদেশ স্বাধীন করেছেন। বঙ্গবন্ধুর পরিবারের জন্য তিনি জীবন দিয়েছেন। আমার চাচা রাশেদ মোশারফ আ’লীগের মনোনয়নে এ আসন থেকে ভূমিপ্রতিমন্ত্রীসহ ৬ বার এমপি হয়েছিলেন। তিনি কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি ছিলেন। বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রথম এবং একমাত্র প্রতিবাদকারী ছিলেন আমার বাবা মেজর জেনারেল খালেদ মোশারফ। এবারের নির্বাচনে দল তাকে মনোনয়ন দিবেন বলে তিনি দৃঢ় বিশ্বাসী ।
জামালপুর-৪ (জামালপুর সদর) আসনের আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মারুফা আক্তার পপি দলের বিভিন্ন সভা সমাবেশে যোগদানসহ নানা কর্মকান্ড ও গণসংযোগ চালাচ্ছেন। তিনি মাঠ পর্যায়ে সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন তৃণমুলে পৌঁেছ দিতে ইতোমধ্যেই মাঠে নেমেছেন। তার সমর্থকরা জানান, পপি অত্যন্ত ক্লিন ইমেজের ব্যক্তি। তাই তাকে মনোনয়ন দেয়া হলে বিজয় নিশ্চিত। অপর দিকে এ আসনের বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য সাবেক সংরক্ষিত এমপি নিলুফার চৌধুরী মনিকে মাঠে তেমন একটা দেখা না গেলেও কেন্দ্রের বিভিন্ন প্রোগ্রাম ও টিভি‘র টক-শোতে প্রায়ই দেখা যায়। তার সমর্থকরা জানান, মনি‘র পক্ষে তারা মাঠে যথাযথ নির্বাচনী প্রচার ও গণসংযোগ চালাচ্ছেন। মনোনয়ন চুড়ান্ত হলে কিংবা বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণের গ্রিন সিগন্যাল দিলে তারে ব্যাপক ভাবে গণসংযোগ ও প্রচার প্রচারণা চালাবেন। তারা আশা করেন, মনোনয়ন পেলে মনি‘র বিজয় কেউ আটকাতে পাররে না।