নাসিরনগরে গণ ধর্ষনের শিকার ৯ বছরের শিশু

প্রকাশিত

মোঃ আব্দুল হান্নান, নাসিরনগর, ব্রাহ্মণবাড়িয়াঃ জেলার নাসিরনগরে ৯ বছরের এক শিশু গণ ধর্ষনে শিকার হয়েছে। ওই ঘটনায় শিশুর মা হাফিজা বেগম বাদী হয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নারী ও শিশু ট্রাইবুনাল ১এ তিনজনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছে। আসামীরা হলেন জারুয়া গ্রামের আবিদুর রহমানের ছেলে কিবরিয়া (১৭) কুতুব মিয়ার ছেলে এমরান মিয়া (২১) ও সেতু মিয়ার ছেলে তুষার মিয়া (২২)। মামলা করে প্রভাবশালী আসামীদের ভয়ে বাড়ী ছাড়া হয়ে রয়েছে বলে জানান বাদী হাফিজা বেগম।
ঘটনাটি ঘটেছে গত ৬ অক্টোবর ২০১৮ রোজ শনিবার সন্ধা অনুমান ৭ ঘটিকার সময় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের জারুয়া গ্রামের জারুয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন এক জঙ্গলে।
মামলা সূত্রে ও ঘটনার বিবরণে জানা গেছে, দরিদ্র হাফিজা বেগমের ভারসাম্যহীন ৯ বছরের শিশু বিকেলে স্কুলের পাশে খেলতে গেলে প্রতিবেশী কিবরিয়া, এমরান ও তুষার ৩ জনে মিলে শিশুটিকে জঙ্গলে নিয়ে মুখে কাপর চেপে ধরে পালাক্রমে ধর্শন করে।
গণধর্ষনের ফলে শিশুটির অবস্থা আশংকা জনক দেখা দিলে তাৎকনিক শিশুটিকে প্রথমে মাধবপুর এবং পরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি ও চিকিৎসা করা হয়। বর্তমানে ধর্ষনের শিকার শিশুটি নাসিরনগর আধুনিক হাসপাতালে ডাঃ তামান্না রহমানের চিকিৎসাধীনে রয়েছে বলে বাদী সূত্রে জানা গেছে। ধর্ষিতা শিশুটি পুরোপুরি সুস্থহতে আরো অনেক সময় লাগতে পারে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে।
এবিষয়ে মামলার আইনজীবি এডঃ আবুল কাসেমের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে জানতে চাইলে, তিনি বলেন আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে এফ, আই, আর রূপে গণ্য করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করতে ওসি নাসিরনগর থানাকে নির্দেশ দেন।
এবিষয়ে নাসিরনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ সাজেদুর রহমানের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে জানতে চাইলে, তিনি বলেন বিষয়টি আমি এইমাত্র আপনার কাছ থেকে শুনেছি। তিনি বলেন এবিষয়ে খুব দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহন করব।

আরো পড়ুন :  ঋণের বোঝা সইতে না পেরে আত্মহত্যা

 

5Shares