মণিরামপুরে বাল্যবিয়ে পড়ানোর দায়ে কাজীর ৬ মাসের জেল

প্রকাশিত

যশোর প্রতিনিধি: যশোরের মণিরামপুরে দশম শ্রেণিতে পড়ুয়া জামিলা খাতুন (১৫) নামে এক শিক্ষার্থীর বাল্যবিয়ে পড়ানোর দায়ে কাজী(নিকাহ রেজিস্ট্রার, ঝাঁপা ইউনিয়ন)উপজেলার মনোহরপুর গ্রামের মৃতঃ ইন্তাজ সরদারের ছেলে জাহান আলী (৬৫)কে ৬মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত।
এই ঘটনায় কনের পিতা আব্দুল আজিজ (৫০), চাচা রমজান আলী (৪০) ও স্বামী সুলতান আহম্মদকে (২৩) দশ হাজার টাকা করে জরিমানা করেছে আদালত। সোমবার (২২ অক্টোবর) রাতে মণিরামপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আহসান উল্লাহ শরিফী ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে এই দন্ড দেন।
আদালতের বেঞ্চ সহকারী আবু হেনা মোস্তফা কামাল জানান,সোমবার দুপুরে উপজেলার ঝাঁপা গ্রামের বাঘডাঙ্গা পাড়ায় বাল্য বিয়ের আয়োজনের খবর পেয়ে পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে যান ইউএনও।
সেখানে গিয়ে জানা যায়,রোববার রাতে বাজে চালুয়াহাটি গ্রামের জাহান আলীর ছেলে সুলতান আহম্মদের সাথে জামিলা খাতুনের বিয়ে পড়ানোর কাজ সম্পন্ন করেছেন কাজী জাহান আলী। সোমবার দুপুরে কনেকে তুলে দেওয়ার আয়োজন চলছিল। যথারীতি বরপক্ষও এসে হাজির হয়েছে। ওই সময় বাল্যবিয়ে দেওয়ার অভিযোগে নিকাহ রেজিস্ট্রার জাহান আলীকে ৬মাসের কারাদন্ড দেওয়া হয় এবং মেয়ের পিতা, চাচা ও স্বামীকে ১০ হাজার টাকা করে মোট ত্রিশ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ইউএনও মোঃ আহসান উল্লাহ শরিফী কাজীর দন্ড ও তিন জনকে জরিমানা করার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
Shares
আরো পড়ুন :  জার্মানিতে ১ কোটি ৩৬ লাখে গ্রাম বিক্রি