গনতন্ত্র বলতে দেশে কিছু নেই: মির্জা ফখরুল

প্রকাশিত

দেশে গণতন্ত্র বলতে কিছু নেই বললেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গত ৫ বছর ধরে বিএনপি সবসময় গণতন্ত্র নিয়ে কথা বলে এসেছে। আর এই গণতন্ত্র নিয়ে কথা বলতে বলতে এখন ক্লান্ত বিএনপি। সোমবার দুপুরে নয়াপল্টনে বিএন‌পির কার্যালয়ে এক যৌথসভা শে‌ষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

ফখরুল বলেন, ‘সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী বিএনপি ও দলের শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দদের নিয়ে যে আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন তা সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক ও রাজনৈতিক শিষ্ঠাচার বহির্ভুত। আমরা তার এমন মন্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। পাশাপাশি আগামী দিনে এ রকম আপত্তিকর মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানাচ্ছি।’

তিনি বলেন, ‘সম্পূর্ণ দখলদারিত্ব কায়েম করে গায়ের জোরে ক্ষমতায় টিকে আছে প্রধানমন্ত্রী। বিনা ভোটের সরকার গঠন করে আবারও অনৈতিক পথে হাঁটছে। গত কয়েকদিনে আবারও আমাদের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার শুরু করেছে। এমতাবস্থায় সুষ্ঠু নির্বাচনের কোন আলামত দেখছি না আমরা।’

আরো পড়ুন :  মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের জন্ তৈরি করা হয়েছেয রিসিপশন ক্যাম্প

এক প্রশ্নের জবাবে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা নির্বাচনে যাবো। তবে এখন পর্যন্ত আমাদের প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়নি। যখন করবো আপনাদের জানিয়ে দেয়া হবে। অবিলম্বে সংসদ ভেঙে দিয়ে নিরপেক্ষ নির্দলীয় সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের আহ্বান জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর সমালোচনা করে ফখরুল বলেন, এ কয়েকদিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে নিয়ে যে অশালিন বক্তব্য দিয়েছেন তা সম্পূর্ণ রাজনৈতিক শিষ্টাচার বর্জিত। ভবিষ্যতে এ ধরণের বক্তব্য থেকে বিরত থাকার জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানান তিনি।এ সময় বিএনপিকে কোন গণতান্ত্রিক কার্মকাণ্ডে অংশ নিতে দেয়া হচ্ছে না বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

আরো পড়ুন :  খোলামেলা পোশাকের কারণে রোষের মুখে মালয়েশিয়ার এয়ারলাইনস

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ভোটারবিহীন প্রধানমন্ত্রীর নূন্যতম মূল্যবোধ থাকলে পদত্যাগ করে নতুন করে নির্বাচনের উদ্যোগ নিতেন।শীতকালীন সংসদীয় অধিবেশনের শুরুতে উন্নয়ন এবং গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখতে সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে রাষ্ট্রপতির দেয়া বক্তব্যের সমালোচনা করেন মির্জা ফখরুল।

তিনি বলেন, ‘রাষ্ট্রপতি হচ্ছেন সংবিধানের অভিভাবক। আমরা সবসময় সংবিধান এবং রাষ্ট্রপতিকে সম্মান দিয়েছি। তবে এখন সেই সংবিধান নেই। ইসি গঠনের পূর্বে এবং পরে আমরা আমাদের মতামত রাষ্ট্রপতির কাছে অবহিত করেছি। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে রাষ্ট্রপতি একটি রাজনৈতিক দলের কর্মকাণ্ড বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন। উনার (রাষ্ট্রপতি) কাছ থেকে আশানুরুপ কোন কিছু দেখতে না পেয়ে আমরা ব্যথিত।

আরো পড়ুন :  চুক্তি চূড়ান্ত, দুই বছরে ফিরবে রোহিঙ্গারা

সংবাদ স‌ম্মেল‌নে সা‌বেক রাষ্ট্রপ‌তি ও বিএন‌পির প্র‌তিষ্ঠাতা শহীদ প্রে‌সি‌ডেন্ট জিয়াউর রহমা‌নের ৮২তম জন্মবা‌র্ষিকী উপল‌ক্ষে ১৮ জানুয়ারী থে‌কে সপ্তাহব্যাপী কর্মসূ‌চি পাল‌নের ঘোষণা ক‌রেন বিএন‌পির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাস‌চিব রুহুল ক‌বির রিজভী আহ‌মেদ।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব মজিবর রহমান সরোয়ার, মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, এমরান সালেহ প্রিন্স, শামা ওবায়েদ, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক এ বি এম ওবায়দুল ইসলাম প্রমূখ।