২ রাজাকারের ফাঁসি, ৩ জনের আমৃত্যু কারাদণ্ড

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদক :

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার দুই রাজাকারের ফাঁসি তিন রাজাকারের আমৃত্যু কারাদণ্ড দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল।

বুধবার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান বিচারপতি শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের বেঞ্চ এ রায় দেন।

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামি হলেন- নেসার আলী ও ওজায়ের আহমেদ চৌধুরী। বাকি তিন জনের (শামসুল হোসেন তরফদার, মোবারক মিয়া ও ইউনুস আহমেদ )  আমৃত্যু কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

এর আগে সকাল ১০টা ৪৫ মিনিটে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান বিচারপতি শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের বেঞ্চে ২০২ পৃষ্ঠার রায় পড়া শুরু হয়। রায় পড়েন বেঞ্চের কনিষ্ঠ বিচারপতি আবু আহমেদ জমাদার।

আরো পড়ুন :  খালেদা জিয়া হবেন আগামী প্রধানমন্ত্রী: মওদুদ

এর আগে গত ২০ নভেম্বর উভয়পক্ষের শুনানি শেষে মামলাটি রায়ের জন্য অপেক্ষমাণ রাখেন আদালত।

গত বছরের ৮ ডিসেম্বর মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার শামসুল হোসেন তরফদারসহ পাঁচ রাজাকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মধ্যে দিয়ে বিচার শুরুর নির্দেশ দেন ট্রাইব্যুনাল। তাদের বিরুদ্ধে হত্যা, গণহত্যা, আটক, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের পাঁচটি অভিযোগ গঠন করা হয়। অভিযুক্ত পাঁচজন হলেন-শামসুল হোসেন তরফদার, মোবারক মিয়া, নেসার আলী, ইউনুস আহমেদ ও ওজায়ের আহমেদ চৌধুরী। ইউনুস আহমেদ ও ওজায়ের আহমেদ চৌধুরী ছাড়া বাকিরা পলাতক রয়েছেন।

আরো পড়ুন :  কোন কাজটি করলে একজন নারী কখনই আপনাকে ভুলতে পারবে না!

২০১৬ সালের ২৬ মে এই পাঁচজনের বিরুদ্ধে ট্রাইব্যুনালে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ দাখিল করা হয়। ২০১৪ সালের ১২ অক্টোবর আসামিদের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করে তদন্ত সংস্থা।

গত বছরের ১৩ অক্টোবর আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করলে ওইদিন বিকেলেই রাজনগর উপজেলার গয়াসপুর গ্রামের ওজায়ের আহমেদ চৌধুরীকে মৌলভীবাজার শহরের চৌমোহনা থেকে ও সোনাটিকি গ্রামের মৌলভি ইউনুছ আহমদকে তার বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

আরো পড়ুন :  মধ্যরাতে পাকিস্তানি আর্মিরা ঢুকেছিল বাড়িতে, কী করছিলাম আমি? : তসলিমা নাসরিন

এরপর ২০ জানুয়ারি তাদের বিরুদ্ধে তদন্তের চূড়ান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থা।