গাজীপুরের টঙ্গীতে পিতা কর্তৃক কন্যাকে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রকাশিত

গাজীপুর প্রতিনিধি: গাজীপুরের টঙ্গীতে পিতা কতৃক (১৪) বছর বয়সী এক কন্যাকে ধর্ষণ করেছে এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযুক্ত পিতার নাম রিপন চৌধুরী(৩৪)। স্ত্রীর দায়ের করা মামলায় রিপনকে টঙ্গীর গোপালপুর এলাকা থেকে আটক করে বুধবার আদালতে প্রেরণ করেছে থানা পুলিশ।
লোমহর্ষক এ ঘটনায় অভিযুক্ত রিপন পেশায় একজন গাড়ি চালক। তিনি নোয়াখালী জেলা রায়পুর থানার চৌধুরী বাড়ি এলাকার বাবুল চৌধুরীর পুত্র।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা থানার পুলিশ উপ-পরিদর্শক সোহবার হোসেন জানান, অভিযুক্ত গাড়ি চালক রিপন দেড় যুগ আগে নোয়াখালী জেলায় বিয়ে করে। বছর কয়েকের মধ্যেই তাদের পরিবারে আসে কন্যা সন্তান। পরে জীবিকার তাগিদে পরিবারে তিন জনকে নিয়েই টঙ্গী গোপালপুর এলাকার একটি ভাড়া বাসায় তাদের বসবাস।
স্ত্রীর সঙ্গে কলহের জেরে গত কয়েক মাস ধরে তার ১৪ বছর বয়সি কন্যাকে নিজ ঘরেই জোরপূর্বক ধর্ষণ করে আসছিলো পাষান্ড।
এরই এক পর্যায়ে মঙ্গলবার রাতে মেয়েটি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে। মেয়েটির কাছ থেকে ঘটনা শুনে স্বামী রিপনকে জিজ্ঞাসা করেন স্ত্রী। রিপন স্ত্রীকে মারধর করে তালাকের ভয়ভীতি দেখায়।
পর দিন বুধবার সকালে স্ত্রী জোসনা বেগম থানায় অভিযোগ দায়ের করলে অভিযুক্ত স্বামীকে আটক করে পুলিশ।
ধর্ষক রিপনের স্ত্রী কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, ন্যাক্কারজনক এ ঘটনায় আমি আমার স্বামীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।
টঙ্গী পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মো. কামাল হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, অভিযুক্ত রিপন পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে ধর্ষণের দায় স্বীকার করেছে। তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

Shares
আরো পড়ুন :  বিশ্ব রেকর্ড চোখ রাঙাচ্ছে সানজামুলকে