ঢাকা ডায়নামাইটসকে হারিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স

প্রকাশিত

খেলাধুলা ডেস্কঃ তামিম ইকবালের অপরাজিত ১৪১ রানের সৌজন্যে ঢাকা ডায়নামাইটসকে ১৭ রানে হারিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো বিপিএল শিরোপা ঘরে তুলেছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। শুক্রবার মিরপর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে তামিম ইকবালের বিস্ফোরক ইনিংসে ভর করে ২০০ রানের পাহাড়সম টার্গেট দেয় কুমিল্লা।

বড় রান তাড়া করার চাপ নিয়ে ব্যাটিংয়ে নামেন ঢাকা ডায়নামাইটসের দুই ওপেনার উপল থারাঙ্গা ও সুনীল নারাইন। কিন্তু ইনিংসের মাত্র দ্বিতীয় বলেই সাইফউদ্দিনের ডিরেক্ট থ্রোতে স্কোরবোর্ডে কোনো রান যোগ না করেই ফিরে যান নারাইন।

শুরুর ব্যর্থতার পর ক্রিজে আসা রনি তালুকদার ও আরেক ওপেনার উপুল থারাঙ্গা বিপর্যয় সামলে নেন। তাদের ১০২ রানে জুটিতে জ্বয়ের সুবাসও পেতে থাকে ঢাকা। কিন্তু মাত্র ২১ রান ব্যবধানে থারাঙ্গা, সাকিব আল হাসান ও রনি তালুকদার ফিরে গেলে জয় থেকে অনেকটা দূরে চলে যায় ডায়নামাইটস।

পরবর্তীতে পোলার্ড, নুরুল হাসানসহ অন্যরা ক্রিজে এসে দু/একটি চার ছয়ের মার মারলেও বড় ইনিংস খেলতে ব্যর্থ হওয়ায় শেষ পর্যন্ত ১৮২ রানে থামে ঢাকার ইনিংস। এর আগে মিরপুর শেরে-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শুক্রবার সন্ধা ৭টা শুরু হওয়া ম্যাচটির প্রথম ইনিংস ছিল অনেকটা ‘তামিম-শো’।

আরো পড়ুন :  জড়িতদের বিরুদ্ধে যে কোনো মূল্যে ব্যবস্থা নিন

বিপিলের শুরুতে কুমিল্লার হয়ে টানা কয়েকটি ইনিংসে শূন্য রানে আউট হওয়া তামিম তার ঝলক দেখালেন ফাইনালে। সেঞ্চুরির পাশাপাশি খেললেন এবারের বিপিএলের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রানের ইনিংস।

মাত্র ৩১ বলে অর্ধশতক পাওয়া তামিম শতক পূর্ণ করেন ৫০ বলে। অর্থাৎ পরের অর্ধশতক আসে মাত্র ২০ বলে। এখানেই থেমে থাকেননি জাতীয় দলের এ ব্যাটিং স্তম্ভ। ফাইনালের মতো গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে যোগ করেছেন আরও ৪১ রান। আর এ রান এসেছে মাত্র ১১ বলে।

তামিম যেনে আজ হয়ে উঠেছিলেন ব্যাটিং দানব। ২৩১ স্ট্রাইক রেটে ১১টি ছয় এবং ১০টি চারের মার মেরছেন এ ওপেনার। রুবেল হোসেন, সাকিব আল হাসান বা আন্দ্রে রাসেল, কাউকেই ছেড়ে কথা বলেননি তিনি। ধীর গতিতে ব্যাটিং শুরু করে শেষের দিকে প্রায় প্রতিটি বলকে সীমানা ছাড়া করেছেন তিনি।

আরো পড়ুন :  ছেলের পোশাক পরে রাবির ছাত্র হলে ছাত্রী!

বিপিএলের ষষ্ঠ আসরের মেগা ফাইনালে ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে টস হেরে আগে ব্যাট করতে নামে কুমিল্লা। তবে শুরুটা ভালো করতে পারেনি ইমরুল বাহিনী। সূচনালগ্নেই টুর্নামেন্টজুড়ে বল হাতে আগুন ঝরানো রুবেলের এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়ে ফেরেন ইনফর্ম এভিন লুইস।

পরবর্তীতে এনামুল হককে নিয়ে প্রাথমিক ধাক্কা কাটিয়ে ওঠেন তামিম ইকবাল। ধীরে ধীরে নিজেদের মধ্যে বোঝাপড়া গড়ে তোলেন। তবে হঠাৎই পথচ্যুত হন এনামুল। সাকিবের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ফেরার আগে ৩০ বলে ২ চারে ২৪ রান করেন তিনি। এর রেশ না কাটতেই ভুল বোঝাবুঝিতে রানআউটে কাটা পড়েন ফর্মে থাকা শামসুর রহমান।

শেষ পর্যন্ত তামিমের দানবীয় ইনিংসে শুরুর দুঃখ ভুলে ঢাকাকে ২০০ রানের বড় সংগ্রহ দেয়ায় দ্বিতীয়বারের মতো শিরোপা ছোঁয়ার স্বপ্ন দেখে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। ম্যাচ শেষে বাস্তবায়ন ঘটে সে স্বপ্নের।

Shares