সীমান্ত খুলে দেয়ার আহ্বান নয় প্রত্যাবাসনে ভূমিকা রাখুন

প্রকাশিত

মায়ানমারে নতুন করে শুরু হওয়া সহিংসতার প্রেক্ষিতে যেসব মিয়ানমারের নাগরিক বাংলাদেশে আশ্রয় নিতে চাচ্ছে তাদের জন্য সীমান্ত খুলে দেয়ার আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর। শুক্রবার এক বিবৃতিতে সংস্থাটি এই আহ্বান জানায়।
আমরা মনে করি বাংলাদেশ যে বর্ডার সিল করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেটা ঠিক আছে বরং সীমান্ত খুলে দেয়ার আহ্বান জানিয়ে জাতিসংঘ মিয়ানমারের পক্ষে অবস্থান নিয়েছে, কারণ মিয়ানমার চায় তাদের জনগণকে বাংলাদেশের ঘাড়ে চাপিয়ে দিতে। আমরা জাতিসংঘকে বলব ওই বিবৃতি প্রত্যাহার করে কিভাবে মিয়ানমারের শরণার্থীদের সে দেশে প্রত্যাবাসন করা যায় তাই নিয়ে কাজ করতে।
অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে, বাংলাদেশ রোহিঙ্গাদের প্রতি যে মানবিক আচরণ করেছে তা ঠিক হয়নি। প্রথমেই বর্ডার সিল করে দেয়ার দরকার ছিল। সৌদি আরব সেখানে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের অপরাধী হিসেবে আটক করে অমানবিকভাবে (হাতে হ্যান্ডকাপ পরিয়ে) বিমানবন্দরে এনে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দিচ্ছে। সেখানে কোনো মানবিকতা, কোনো ধর্মীয় মহাত্ত্ব বোধ কাজ করছে না। ভারত তাদের ওখানে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে পাঠিয়ে দিচ্ছে।
জাতিসংঘ বর্ডার খুলে দিতে বলছে, এ থেকে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশের নাগরিক বলে মিয়ানমার যে অপপ্রচার চালাচ্ছে, তাকে সমর্থন জানানো হচ্ছে। কিন্তু কফি আনান কমিশন যে রিপোর্ট দিল রোহিঙ্গারা ঐতিহাসিকভাবে মিয়ানমারের নাগরিক সেটাকে উপেক্ষা করা বিশ্ব সম্প্রদায়ের উচিত হচ্ছে না।
আমরা বিশ্ব সম্প্রদায়কে বলব, প্রধানমন্ত্রী মিয়ানমারের অভ্যন্তরে রোহিঙ্গাদের জন্য নিরাপদ বসবাস তৈরির যে প্রস্তাব দিয়েছেন, তাই নিয়ে কাজ করুন। সীমান্ত আর খোলা হবে না। শুধুমাত্র প্রত্যাবাসনের জন্য খোলা হতে পারে।
Shares
আরো পড়ুন :  স্মার্টফোন মেলায় যত ছাড়