রাজশাহীতে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিজিবি’র টহল শুরু

প্রকাশিত

রাজশাহীতে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ও আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ১৯ প্লাটুন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।
শনিবার (৯ মার্চ) সকাল থেকে বিজিবি সদস্যরা উপজেলার নির্বাচনী বিভিন্ন এলাকায় টহলসহ নিরাপত্তার সার্বিক দায়িত্ব পালন শুরু করেন।
বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)-১ ব্যাটালিয়নের কর্মান্ডার তাজুল ইসলাম তাজ এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে রাজশাহীতে ১৯ প্লাটুন বিজিবি সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে এবং চার প্লাটুন রিজার্ভ রাখা হবে। তারা বিশেষ প্রয়োজনে বের হবেন।
এ ছাড়া শনিবার বেলা ১১টা থেকে ২টি ডগ স্কোয়ার্ড নিয়ে বিজিবি সদস্যরা টহল ও স্টাইকিং ফোর্স হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তারা বিভিন্ন উপজেলায় অবস্থান নিয়ে নির্বাচনের সার্বিক নিরাপত্তার দিকে সতর্ক নজর রাখবেন।
এদিকে, রাজশাহীর সবগুলো উপজেলায় নির্বাচনের তফশিল ঘোষণা হলেও উচ্চ আদালতের স্থগিতাদেশে জেলার পবা উপজেলায় নির্বাচন হচ্ছে না। এক বছরের জন্য স্থগিত রয়েছে সেখানকার ভোট। বাকি আট উপজেলায় নির্বাচনের কারণে নিরাপত্তা নেয়া হয়েছে।
জেলার পুলিশ সুপার মো. শহিদুল্লাহ জানান, রাজশাহীতে ভোটগ্রহণ হচ্ছে ৫২২ কেন্দ্রে। নিরাপত্তা পরিকল্পনায় এর মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ (গুরুত্বপূর্ণ) ভোটকেন্দ্র ধরা হয়েছে ২১৬টি। বাকি ৩০৬টি কেন্দ্র সাধারণ ধরে নিরাপত্তা ছক তৈরি করা হয়েছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, জেলার তানোর উপজেলায় ভোটগ্রহণ হচ্ছে ৫১ কেন্দ্রে। ২৮টি ঝুঁকিপূর্ণ এবং ২৩টি সাধারণ ভোটকেন্দ্র রয়েছে এ উপজেলায়। গোদাগাড়ী উপজেলায় ৯৮ ভোট কেন্দ্রের ৩৬টি ঝুঁকিপূর্ণ এবং ৫৮টি সাধারণ।
মোহনপুর উপজেলায় ২৩টি ঝুঁকিপূর্ণ এবং ২১টি সাধারণ মিলিয়ে মোট ভোটকেন্দ্র ৪৪টি। বাগমারায় জেলার সর্বাধিক ১০৬টি ভোটকেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হচ্ছে। এর মধ্যে ২৭টি ঝুঁকিপূর্ণ এবং ৭৯টি সাধারণ।
দুর্গাপুরের ৫৩ ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ১৫টি ঝুঁকিপূর্ণ এবং ৩৮টি সাধারণ ভোটকেন্দ্র। জেলার পুঠিয়ায় ৫২ ভোটকেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হচ্ছে। এর মধ্যে ২৩টি ঝুঁকিপূর্ণ এবং ২৯টি সাধারণ ভোটকেন্দ্র।
চারঘাট উপজেলায় ২৩টি ঝুঁকিপূর্ণ এবং ২১টি সাধারণ মিলিয়ে ভোটকেন্দ্র রয়েছে ৪৪টি। এছাড়া বাঘা উপজেলার ৫৯ ভোটকেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হচ্ছে। এখানকার ২২টি ভোটকেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ এবং ২১টি সাধারণ ধরে নিরাপত্তা কৌশল ঠিক করেছে পুলিশ।
গোদাগাড়ী, মোহনপুর, বাগমারা ও চারঘাট উপজেলা নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম বলেন, শনিবার সকাল থেকে ভোট গ্রহণের প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছে গেছে।
তিনি জানান, জেলার তানোরে এক লাখ ৪৫ হাজার ৩৪৩, গোদাগাড়ীতে ২ লাখ ৩৮ হাজার ৪৩, মোহনপুরে এক লাখ ২৯ হাজার ২৪৮, বাগমারায় ২ লাখ ৭৮ হাজার ১৪; পুঠিয়ায় এক লাখ ৬০ হাজার ৭২৪; দুর্গাপুর এক লাখ ৪১ হাজার ১০৫; চারঘাটে এক লাখ ৫৯ হাজার ৭২৫ এবং বাঘায় এক লাখ ৪৪ হাজার ৫৭৩ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করছেন।
উল্লেখ্য, টানা ১৬ দিনের প্রচারণা শেষে প্রথম দফার ভোট গ্রহণ রোববার। তাই রাজশাহীর আট উপজেলায় এ নির্বাচনকে ঘিরে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন।
Shares
আরো পড়ুন :  বড়াইগ্রামে মিলের বর্জ্য থেকে আবাদী জমি রক্ষার দাবিতে মানববন্ধন ও মহাসড়ক অবরোধ