প্রতিবেশীর দায়ের কোপে শেরপুরে যুবকের মৃত্যু

প্রকাশিত

শেরপুর প্রতিনিধিঃ শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার সালধা মাঝপাড়া গ্রামে প্রতিবেশীর দায়ের কোপে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। মৃত শাহাবুদ্দিন মিয়া (৩৫) মাঝপাড়া গ্রামের আব্দুল লতিফ ওরফে জঙ্গু মিয়ার ছেলে।

রোববার দুপুর আড়াইটার দিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। ঝিনাইগাতী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার বিশ্বাস ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, পারিবারিক শত্রুতার জের ধরে এ খুনের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় হত্যা মামলা দায়ের প্রক্রিয়া চলছে এবং ঘটনার পরপরই গা ঢাকা দেয়ায় হত্যাকারীকে গ্রেফতার করা যায়নি।

আরো পড়ুন :  শহিদুল আলমকে মুক্তি দিতে টিউলিপের আহ্বান

স্থানীয় সূত্র জানায়, রোববার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ঝিনাইগাতী সদর ইউনিয়নের সালধা গ্রামের শাহাবুদ্দিন নিজের বোরো ধানক্ষেতের পরিচর্যা শেষে বাড়ি ফিরছিল। এ সময় প্রতিবেশী কলিম উদ্দিনের ছেলে হেলাল উদ্দিন দা দিয়ে পেছন থেকে শাহাবুদ্দিনের মাথায় ও শরীরে কোপ দেয়। এতে শাহাবুদ্দিন গুরুতর আহত হয়।

স্থানীয় লোকজন শাহাবুদ্দিনকে উদ্ধার করে শেরপুর জেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে অবস্থার অবনতি হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। দুপুর আড়াইটার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

আরো পড়ুন :  হুয়াওয়ে ওয়াই ফাইভ লাইট ফোনের দাম কমেছে

ঝিনাইগাতী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার বিশ্বাস বলেন, হেলালের সঙ্গে তার আত্মীয়দের আগে থেকেই বিরোধ চলছিল। এর জের ধরে উভয় পক্ষের সংঘর্ষের সময় শাহাবুদ্দিন মাঝখানে অবস্থান নিয়ে সংঘর্ষ থামিয়ে দেয়। এ নিয়ে শাহাবুদ্দিনের ওপর হেলাল ক্ষুব্ধ ছিল। ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শাহাবুদ্দিন খুন হন। খুনিকে গ্রেফতার ও ঘটনাটির তদন্ত চলছে বলেও জানান ওসি।

Shares