জেনে নিন হতাশা কাটাতে যা করতে হবে

প্রকাশিত

চাকরি জীবনের পটভূমি এখন অনেকটাই নতুন। আগের মতো এখন অনেক কিছুই নেই। খুব বেশি প্রযুক্তিনির্ভর হয়ে উঠছে আমাদের জীবন, পাশাপাশি বেড়েছে প্রতিযোগিতাও। তাই ক্যারিয়ার গড়তে সঠিক কৌশলটি সময়মতো জোড়ালোভাবে অবলম্বন করাই হবে বুদ্ধিমানের কাজ। আমাদের অভিভাবকরা কঠোর পরিশ্রম করতেন আমাদের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষায় শিক্ষিত করে ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, ম্যানেজার, আইনজীবী ইত্যাদিতে ক্যারিয়ার গড়ার উদ্দেশ্যে।

আমাদের আকাঙক্ষাকে পরিপূর্ণ করতে শুধুমাত্র শিক্ষাগত যোগ্যতা কিংবা পূর্ব নির্ধারিত টার্গেটই যথেষ্ট নয়। তবে এই অনিশ্চয়তাকে পরিবর্তন করাটা অতি প্রয়োজন। তাহলে কোথায় পরিবর্তনের কথা ভাববো আমরা? ব্যক্তিগত কর্মপরিকল্পনা ঠিক একটি পিৎজা খাওয়ার মতো। কারণ আপনি চান আপনার পিৎজাটা যেন বড় এবং সুস্বাদু হয়? আপনাকে অবশ্যই লক্ষ্য অর্জনে সুন্দর একটি কর্ম পরিকল্পনা তৈরি করে ধীরে ধীরে এগিয়ে যেতে হবে? হ্যাঁ, এসবের জন্য গুরুত্বপূর্ণ তিনটি বিষয় আপনাদের সামনে তুলে ধরতে পারি। এই ৩টি বিষয়কে যদি আমরা বুঝতে পারি, তাহলে সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে নিজের ভবিষ্য উজ্জ্বল ও স্পষ্টতর করতে পারব বলে আমরা আশাবাদী।
প্রযুক্তির বদৌলতে যে কোনো জায়গা থেকে প্রয়োজনীয় কাজ সম্পন্ন করা এবং একটি ভার্চুয়াল দলের অংশ হওয়া।
ব্যবসা ক্রমবর্ধমানভাবে চুক্তিভিত্তিক কাজে পরিণত হচ্ছে। নির্দিষ্ট বেতনভুক্ত লোকের চেয়ে তারা কাজকে চুক্তি ভিত্তিতেই সম্পন্ন করতে চাইছেন। এতে নির্দিষ্ট সময়ে অল্প খরচে ভালো কাজও পাওয়া যায়। আর যারা চুক্তিভিত্তিক কাজ করে থাকেন তাদের মধ্যেও থাকে ভালো কাজ দেয়ার একটা প্রতিযোগিতা। স্বয়ংসম্পূর্ণতা এবং সামাজিক গ্রহণযোগ্যতা নিয়েও এখন আমরা অনেক বেশি উদ্বিগ্ন থাকি। তিনটি বিষয় নিয়ে যদি আমরা একটু মনোযোগসহকারে চিন্তা করি তাহলে হয়তো অনেক প্রশ্নই তৈরি হবে। যেমন- ধরুন কোন পথে এগুব, আমার সময়টুকু আমি কোথায় ব্যয় করব? অনলাইনে বিভিন্ন ক্লায়েন্টের মুখোমুখি হবো? অন্য কোনো গ্রুপের সঙ্গে ঢুকব? নাকি নিজেই একটি গ্রুপ তৈরি করব? কাজ কী আউটডোর নির্ভর হবে নাকি ইনডোর? আমার স্বপ্নের কাজের জায়গাটা কী? আমরা যখনই কোনো চাকরি পরিবর্তন করি, তখন অবশ্যই আমরা এমন চাকরিই খুঁজি যা করে নিজের দৈনন্দিন চাহিদা পূরণের পাশাপাশি খানিকটা মানসিক তৃপ্তিও অর্জন করতে পারি।
যদি আপনি আসলেই চান যে, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কাজ চুক্তিভিত্তিক করে দিতে, তাহলে আপনাকে সেই কাজটাই করা উচিত যে কাজের উপর দক্ষতা রয়েছে, পাশাপাশি রয়েছে সেই কাজের প্রতি অধিক ভালোবাসা।
আপনি যেই পেশাটাই বাছাই করতে চান না কেন, সে পেশা সম্বন্ধে অবশ্যই সঠিক এবং স্বচ্ছ ধারণা থাকা জরুরি। তবেই হতাশা কাটবে নিজের ক্যারিয়ারের।

Shares
আরো পড়ুন :  বাসা ভাড়া দিচ্ছে না কেউ, নাম পরিবর্তন করলেন অভিনেতা