খাজা নৈপুণ্যে ভারতের মাঠেই শিরোপা জিতল অস্ট্রেলিয়া

প্রকাশিত

খেলাধুলা ডেস্কঃ দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে ভারতকে হোয়াইটওয়াশ করেই পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে খেলতে নেমেছিল অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু টি-টোয়েন্টি সিরিজের মতোই ইতিবাচক ফল পাওয়ার জোরদার আশা হয়তো ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার পার ভক্তও করতে পারেননি।

পারবেন-ই বা কীভাবে? ভারতের মাটিতে ওয়ানডে সিরিজ জেতা কী আর মুখের কথা? সেই যে ২০০৯ সালে রিকি পন্টিংয়ের অধীনে ৭ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজটি ৪-২ ব্যবধানে জিতল অস্ট্রেলিয়া, এরপর দশ বছরে আরও তিনবার ভারত সফর করেও বিজয়ীর হাসি নিয়ে ওয়ানডে সিরিজ শেষ করতে পারেনি পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

অনেকেই হয়তো ধরেই নিয়েছিল এবারও পারবে না অ্যারন ফিঞ্চের অস্ট্রেলিয়া। সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচ হেরে সে ইঙ্গিতই দিচ্ছিল অসিরা। কিন্তু সবাইকে অবাক করে দিয়ে পরের তিন ম্যাচ জিতে নিয়েছেন অ্যারন ফিঞ্চ-উসমান খাজারা। দীর্ঘ ১০ বছর পর ভারতের মাটিতে ওয়ানডে সিরিজের জয়ের স্বাদ পেল অস্ট্রেলিয়া।

আজ বুধবার সিরিজ নির্ধারণী শেষ ওয়ানডেতে অস্ট্রেলিয়ার জয়ের ব্যবধানটা ৩৫ রানের। উসমান খাজার ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সেঞ্চুরিতে ভর করে অস্ট্রেলিয়া দাঁড় করায় ২৭২ রানের সংগ্রহ। যা তাড়া করতে নেমে ২৩৭ রানের বেশি করতে পারেনি স্বাগতিক ভারতীয় ক্রিকেট দল।

দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলা স্টেডিয়ামে ২৭৩ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে এক রোহিত শর্মা ব্যতীত শুরুর ব্যাটসম্যানদের মধ্যে আর কেউই আশা দেখাতে পারেননি। বিশ্বের তৃতীয় দ্রুততম ক্রিকেটার হিসেবে আট হাজার রানের মাইলফলকে প্রবেশ করেন রোহিত। তিনি আউট হন ৫৬ রান করে।

আরো পড়ুন :  সু চির বাড়িতে পেট্রোল বোমা

এছাড়া শিখর ধাওয়ান ১২, বিরাট কোহলি ২০, রিশাভ পান্ত ১৬, বিজয় শঙ্কর ১৬ এবং রবিন্দ্র জাদেজা ০ রানে আউট হলে মাত্র ১৩২ রানেই ৬ উইকেট হারিয়ে বসে ভারত। তখন অস্ট্রেলিয়ার জয়টা মনে হচ্ছিলো সময়ের ব্যাপার।

কিন্তু লড়াইয়ের ইঙ্গিত দেন কেদার যাদভ এবং ভুবনেশ্বর কুমার। সপ্তম উইকেটে দুজন মিলে যোগ করেন ৯১ রান। কিন্তু ৪৬তম ওভারের শেষ বলে ভুবনেশ্বর এবং ৪৭তম ওভারের প্রথম বলে কেদার আউট হয়ে সাজঘরে ফিরলে জয়ের সম্ভাবনা শেষ হয়ে যায় ভারতের। ভুবনেশ্বর ৪৬ এবং কেদার খেলেন ৪৪ রানের ইনিংস। শেষপর্যন্ত নির্ধারিত ৫০ ওভারে সবকয়টি উইকেট হারিয়ে ২৩৭ রান করতে সক্ষম হয় ভারত।

অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন অ্যাডাম জাম্পা। এছাড়া প্যাট কামিনস, মার্কস স্টইনিস ও ঝাই রিচার্ডসন নেন ২টি করে উইকেট। ১টি উইকেট নাথান লিয়নের ঝুলিতে।

এর আগে উসমান খাজার ব্যাটে ভর করে শুরুটা দারুণ করেছিল অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল। সম্ভাবনা জেগেছিল সাড়ে তিনশ রানের সংগ্রহ দাঁড় করানোর। কিন্তু পরের ব্যাটসম্যানরা হতাশ করায় ২৭২ রানের বেশি বাড়েনি সফরকারীদের পুঁজি। তবে ব্যাট হাতে রেকর্ড ঠিকই করে ফেলেছেন পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত উসমান খাজা।

চলতি সিরিজের পাঁচ ম্যাচে উসমান খাজার রানগুলো হলো যথাক্রমে ৫০, ৩৮, ১০৪, ৯১ ও ১০০। নিজের ওয়ানডে ক্যারিয়ারের প্রথম দুই সেঞ্চুরিসহ মোট ৩৮৩ রান করেছেন বাঁহাতি এ টপঅর্ডার। আর এতেই গড়েছেন রেকর্ড।

আরো পড়ুন :  বিএনপির ইশতেহার ঘোষণা শুরু

ভারতের বিপক্ষে পাঁচ বা তার কম ম্যাচের সিরিজে খাজার চেয়ে বেশি রান করতে পারেননি আর কোনো ক্রিকেটার। এতদিন ধরে রেকর্ডটি ছিলো কেন উইলিয়ামসনের দখলে। ২০১৩-১৪ মৌসুমে নিজেদের মাঠে ৫ ম্যাচের সিরিজের সবকয়টি ম্যাচে ফিফটি করা উইলিয়ামসন মোট করেছিলেন ৩৬৩ রান। তার এ রেকর্ড আজ নিজের করে নিয়েছেন খাজা।

তবে খাজা নিজের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি তুলে নিলেও খুব বেশি বড় হয়নি অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস। উদ্বোধনী জুটিতে ৭৬ এবং দ্বিতীয় উইকেটে ৯৯ রান আসায় ৩৩ ওভার শেষে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ দাঁড়ায় ২ উইকেটে ১৭৬ রান। তখনই ঘুরে দাঁড়ায় ভারত। শেষের ১৭ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে মাত্র ৯৬ রান করতে সক্ষম হয় অস্ট্রেলিয়া।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ১০০ রান করেছেন খাজা। ১০৬ বলের ইনিংসে ১০টি চারের সঙ্গে ২টি ছক্কা হাঁকান তিনি। এছাড়া পিটার হ্যান্ডসকম্ব ৫২, ঝাই রিচার্ডসন ২৯ এবং অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চের ব্যাট থেকে আসে ২৭ রান। ২-২ সমতায় থাকা সিরিজটি জিততে ভারতকে করতে হবে ২৭৩ রান।

ভারতের পক্ষে বল হাতে ভুবনেশ্বর কুমার নিয়েছেন ৩টি উইকেট। এছাড়া মোহাম্মদ শামী ও রবিন্দ্র জাদেজা নিয়েছেন ২টি করে উইকেট।

Shares