পাইকগাছার কপিলমুনি কলেজ কেন্দ্রে প্রশ্নপত্রের ভূল খাম কর্তন,পিছিয়ে দেওয়া হল এইচ এসসির ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বীমা ২য় পত্র পরীক্ষা

প্রকাশিত

Sharing is caring!

শেখ দীন মাহমুদ,পাইকগাছা(খুলনা)

শিক্ষকদের অসাবধানতা,দায়িত্বহীনতা ও আনাড়ীপনায় প্রশ্ন পত্রের ভুল খাম কেটে ফেলায় পিছিয়ে দেয়া হয়েছে যশোর ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের আজকের (২৯ এপ্রিল) পরীক্ষা। এ দুই বোর্ডের ২৯ এপ্রিল সকালে নির্ধারিত ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বীমা ২য় পত্র পরীক্ষাটি আগামী ৭ মে দুপুর ২টায় অনুষ্ঠিত হবে।

জানা গেছে, ২৮ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হয়েছে ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বীমা ১ম পত্র পরীক্ষা। কিন্তু খুলনার পাইকগাছা উপজেলার কলিপমুনি-২১৭ কেন্দ্রে পরীক্ষার প্রশ্নের ফয়েল খাম কেটে ফেলেন শিক্ষকরা। অপরদিকে ফরিদপুরের আলফাডঙ্গা সরকারি কলেজ কেন্দ্রেও ঘটে একই ঘটনা। এ কারণে দুই বোর্ডের ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বীমা ২য় পত্রের পরীক্ষাটি নতুন প্রশ্নপত্রে নিতে পরীক্ষার তারিখ পরিবর্তন করা হয়েছে।

রোববার (২৮ এপ্রিল) যশোর ও ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড থেকে পরীক্ষার তারিখ পরিবর্তন কথা জানিয়ে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকদের কাছে এমর্মে পৃথক চিঠি দিয়েছে। চিঠিতে আরো বলা হয়, ২৯ এপ্রিলের নির্ধারিত অন্যান্য পরীক্ষা সময়সূচি অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হবে।

এব্যাপারে পাইকগাছার সংশ্লিষ্ট কপিলমুনি কলেজের অধ্যক্ষ ও পরীক্ষা কমিটির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ হাবিবুল্ল্যাহ বাহারের নিকট জানতে তার ব্যবহৃত মোবাইলে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

কলেজের দায়িত্বশীল সূত্র জানায়,কপিলমুনি কলেজ কেন্দ্র কোড ২১৭ এর আওতায় দুটি ভেন্যুতে পরীক্ষা হয়। যার অপরটি হরিঢালী-কপিলমুনি মহিলা কলেজে ঐপ্রশ্নপত্রের ফয়েল খাম কাটার ঘটনা ঘটে বলে স্বীকার করে তিনি বলেন,কপিলমুনি কলেজ কেন্দ্রের পরীক্ষা কমিটির দায়িত্বরত অন্যান্যরা হলেন,হলসুপার স্বপন কুমার অধিকারী,সদস্য বিপ্লব কান্তি মন্ডল,আব্দুল কুদ্দুস ও সৌমিত্র সাধু।