রাজপথ মৃত্যুর মিছিল এক দিনেই ঝরল ২৩ প্রাণ

প্রকাশিত

সিক্স ডেক্স- বেপরোয়াভাবে যানবাহন চালানোর কারণে পবিত্র ঈদের আগেও মৃত্যুর মিছিলে পরিণত হয়েছে সড়কপথ। গতকাল একদিনেই বিভিন্ন সড়কে বলি হতে হয়েছে ২৩ জন মানুষকে। এ ছাড়া আহত হয়েছেন আরও অর্ধ শতাধিক মানুষ। অভিযোগ অনুযায়ী, রাজপথ মোটামুটি ফাঁকা থাকলেও চালকরা তাদের যানকে নিয়ন্ত্রণে দায়িত্বশীল থাকেননি। ফলে সড়কে ঝরেছে রক্ত। আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো দুর্ঘটনার বিবরণ- সিরাজগঞ্জ : চালকের গাফিলতি ও বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানোর কারণে সিরাজগঞ্জে গতকাল ঝরেছে নয়জনের তাজাপ্রাণ। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে হাটিকুমরুল-পাবনা মহাসড়কের উল্লাপাড়ার বোয়ালিয়া বাজারের কাছে জোড়া ব্রিজের ওপর বাস- লেগুনা সংঘর্ষে এই প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষে অন্তত আটজন গুরুতর আহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে রয়েছেন উল্লাপাড়া উপজেলার কয়ড়া কৃষ্টপুর গ্রামের রেজাউল করিম প-িতের ছেলে মাওলানা নুরুল ইসলাম (৪৫), একই গ্রামের মৃত জয়নালের ছেলে জুলমত আলী (৪৫), কয়ড়া গ্রামের ছোরহাব আলীর ছেলে ফজলু প্রামাণিক (৩৫), চাড়াবাড়িয়া গ্রামের আবদুুর রশিদের ছেলে আবদুল বারিক (৪৫), পাগলা উত্তরপাড়া গ্রামের ইউনুস আলীর ছেলে লেগুনা চালক রেজাউল করিম (৩২), বজড়াপুর গ্রামের আবু হানিফের ছেলে আবু সিদ্দিক (৩৮), এই গ্রামের মৃত আবু হানিফের ছেলে শেখ সাদি (৫৫), বড়হর গ্রামের ইনসাব আলীর ছেলে আক্তার হোসেন (৪২) ও সলঙ্গার ফেউকান্দি গ্রামের গফুর ফকিরের ছেলে আবদুল মান্নান (৫০)। সিরাজগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ¯িœগ্ধ আকতার (পিপিএম) জানান, ঢাকা থেকে পাবনাগামী পাবনা এক্সপ্রেসের একটি এসি বাস ঘটনাস্থলে পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি লেগুনা মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটায়। এতে ঘটনাস্থলেই লেগুনায় থাকা আটজনের মৃত্যু হয় এবং হাসপাতালে নেওয়ার পর আরও একজন মারা যান। বৃষ্টির মধ্যে রাস্তা ফাঁকা থাকায় বাস ও লেগুনা দুটোই দ্রুতগামী ছিল। যে কারণে দুর্ঘটনা ও হতাহতের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। মূলত চালকদের গাফিলতি ও বেপরোয়া গতিই দুর্ঘটনার জন্য দায়ী। প্রত্যক্ষদর্শী বোয়ালিয়া এলাকার মাহবুবুর রহমান জানান, পাবনাগামী বাসটি দ্রুতগতিতে যাচ্ছিল। আর বিপরীত দিক থেকে আসা দ্রুত গতির লেগুনাটি সামনে বাস না দেখেই আরেকটি নসিমনকে ওভারটেক করায় মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে লেগুনাটির সম্মুখভাগ সম্পূর্ণ দুমড়ে-মুচড়ে গেছে। হাটিকুমরুল হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুল কাদের জিলানী জানান, সংবাদ পেয়ে উল্লাপাড়া, সলঙ্গা ও হাটিকুমরুল হাইওয়ে থানা পুলিশ এবং সিরাজগঞ্জ ও উল্লাপাড়া ফায়ার সার্ভিস সদস্যরা যৌথভাবে হতাহতদের উদ্ধার করে। দুর্ঘটনার পর মহাসড়কে যানজটের সৃষ্টি হলেও দ্রুত উদ্ধার অভিযানের কারণে অল্প সময়ের মধ্যেই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। বিকালে নিহতের লাশ পরিবারের লোকের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। দুর্ঘটনাকবলিত বাস ও লেগুনা জব্দ করে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। উল্লাপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আরিফুজ্জামান জানান, তাৎক্ষণিক নিহত ছয়জনের পরিবারকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২০ হাজার টাকা করে অনুদান দেওয়া হয়েছে। বাকি নিহত ৩ জনের পরিবারকে আজকের মধ্যে অনুদান দেওয়া হবে।

সুনামগঞ্জ : সুনামগঞ্জ-দিরাই সড়কের গনিগঞ্জ এলাকায় গতকাল ভোরে যাত্রীবাহী বাস-লেগুনার মুখোমুখি সংঘর্ষে ৭ লেগুনাযাত্রীর ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছেন আরও ৭ জন। মুখোমুখি সংঘর্ষে বাস ও লেগুনা সড়কের দুপাশে ছিটকে পড়ে যায়। স্থানীয়রা জানান, লেগুনার যাত্রীদের সবাই ছিলেন শ্রমজীবী। তারা ঈদ উপলক্ষে ঢাকা থেকে নাইট কোচে মদনপুর পয়েন্টে নামেন। পরে লেগুনাযোগে বাড়ির উদ্দেশে যাত্রা করেন। নিহতরা হলেন দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার দুর্বাকান্দা গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে আফজাল হোসেন (১৬), একই গ্রামের ফজল মিয়ার ছেলে মিলন (১৫), ইস্তু মিয়ার ছেলে সাগর (১৬), গাগলি গ্রামের আবদুলের ছেলে লেগুনা চালক নোমান (২২), শাল্লা উপজেলার নিয়ামতপুর গ্রামের মনীন্দ্র দাসের ছেলে নৃপ্রেশ দাস (২০) ও কুটিপাড়া গ্রামের নারায়ণ সাহার ছেলে শিপন সাহা। পুলিশ ও প্রতক্ষদর্শীরা জানান, দিরাই থেকে লিমন পরিবহনের একটি বাস ঢাকার উদ্দেশে যাচ্ছিল। ফিরতি পথে থাকায় এতে কোনো যাত্রী ছিল না। বাসটি দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার গনিগঞ্জ এলাকায় পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা অপর একটি লেগুনার সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। গতি বেশি থাকায় গাড়ি দুটি রাস্তার দুপাশে ছিটকে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলে ৬ লেগুনা যাত্রীর মৃত্যু হয়। লক্ষ্মীপুর : লক্ষ্মীপুরে ট্রাকের ধাক্কায় অটোরিকশা যাত্রী পুন্নি আক্তার ও খুশি আক্তার নামের দুই নারী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় এক শিশুসহ আহত হয়েছেন আরও ৩ জন। গতকাল বিকাল ৪টার দিকে লক্ষ্মীপুর ঢাকা রায়পুর মহাসড়কের দালাল বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে রাখা হয়েছে। আহত শিশু শাহেদ, গাড়ির চালক সোহেলসহ ৩ জনকে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।  প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, রায়পুর থেকে ছেড়ে আসা একটি ট্রাক ঘটনাস্থলে এসে মোড়ে অটোরিকশার পেছনে ধাক্কা দেয়। এ সময়  অটোরিকশাটি দুমড়ে-মুচড়ে গেলে ঘটনাস্থলেই মারা যান খুশি আক্তার। ভালুকা (ময়মনসিংহ) : ভালুকায় লরির ধাক্কায় নাজমুল হক (৩৫) নামে এক ভ্যান চালক নিহত ও ৫ নারী আহত হয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বিকালে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পৌর সদরের বাগরাপাড়া এ. আর. ফিলিং স্টেশনের সামনে। নিহত ভ্যান চালক নাজমুল হক গফরগাঁও উপজেলার রসুলপুর গ্রামের রহমত উল্লার ছেলে। নাটোর : নাটোরের বনপাড়া হাটি-কুমরুল মহাসড়কের মহিষভাঙ্গা এলাকায় তেল পা¤ন্ডেপর সামনে, একটি হাইস গাড়ি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেলে ১১ বছরের এক শিশু নিহত ও ৫ জন আহত হয়েছেন। বাগেরহাট : বাগেরহাটের ফকিরহাটে মাইক্রোবাসের ধাক্কায় মুফতা আক্তার নামে ছয় বছর বয়সী পথচারী শিশু নিহত হয়েছে। গতকাল দুপুরে বাগেরহাট-মাওয়া মহাসড়কের ফকিরহাট উপজেলার কাঁঠালতলা এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।  ফুলপুর (ময়মনসিংহ) : ময়মনসিংহের ফুলপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় মোফাখখারুল ইসলাম (২৫) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। নিহত মোফাখখারুল ফুলপুর উপজেলার হোসেনপুর গ্রামের আবদুুল মান্নানের ছেলে। পঞ্চগড় : দেবীগঞ্জে গতকাল সন্ধ্যায় ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেল আরোহি তন্ময় কুমার (১৬) মারা গেছে।