মুক্তিযোদ্ধাদের কটুক্তি’র অভিযোগে চেয়ারম্যান প্রার্থীর বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান

প্রকাশিত

সাব্বির হোসাইন আজিজ, মাদারীপুর –
মাদারীপুরে ১৮ জুন অনুষ্ঠিত সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতিক প্রার্থী জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজল কৃষ্ণ দে এর বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাদের কটুক্তি ও অশোভনীয় আচারনের অভিযোগের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেছে মুক্তিযোদ্ধারা ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড জেলা ইউনিট।
সংশ্লিষ্ট সূত্রেজানা গেছে, কাজল কৃষ্ণ দে এর বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার দাবিতে সোমবার সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন ও স্বারকলিপি প্রদান করেছে মাদারীপুরের মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের সন্তানরা। মানববন্ধন শেষে রিটার্নিং অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. আজাহারুল ইসলামের কাছে স্বারকলিপি দিয়েছে তারা।
স্বারকলিপিতে মুক্তিযোদ্ধারা উল্লেখ করেছেন, গত ৭ জুন বেলা সোয়া ১২ টায় সদর উপজেলার শ্রীনদী বাজারে কাজল কৃষ্ণ দে এর প্রতিদ্বন্দি প্রার্থী ওবাইদুর রহমান খানের আনারস প্রতিকে নির্বাচনী প্রাচার করছিল মুক্তিযোদ্ধারা। সে সময় শ্রীনদী বাজারে কাজল কৃষ্ণ দে এর সাথে দেখা হলে মুক্তিযোদ্ধাদের বেঈমান ও অকৃতজ্ঞ রাজাকার উল্লেখ করে অনেক কটুক্তি করেন তিনি। এছাড়া সরকারে দেয়া ১০ হাজার টাকা ভাতা নেয়ার কারণে তিরস্কার করেন। নির্বাচনে জয়ী হলে মুক্তিযোদ্ধাদের দেখিয়ে দেবে বলে হুমকি প্রদান করেন। গত ২৫ মে আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়েদুর কাদের বেসরকারি একটি টেলিভিশনে এক স্বাক্ষাতকারে বলেন, মনোয়ন প্রাপ্ত বা বিদ্রোহী যেই নির্বাচিত হবে সেই আওয়ামীলীগের চেয়ারম্যান বলে বিবেচিত হবে। তাই ওবাইদুর রহমান খানের পক্ষে মুক্তিযোদ্ধারা নির্বাচন করছেন বলে স্বারকলিপিতে উল্লেখ করেন। এছাড়া আওয়ামীলীগ প্রার্থী কাজল কৃষ্ণ দে এর পরিবার স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী এবং মুসলিম লীগ মনোভাবাপন্ন ছিল বলেও স্বারকলিপিতে উল্লেখ করেন মুক্তিযোদ্ধারা।
এসময় মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদানের সময় উপস্থিত ছিলেন, রাজৈর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আঃ মোতালেব মিয়া, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার শাজাহান হাওলাদার, বীর মুক্তিযোদ্ধা খলিলুর রহমান খান, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড জেলা ইউনিটর সাধারণ সম্পাদক কাজি রুবেল সহ বিভিন্ন মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানেরা।