নির্যাতন সইতে না পেরে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টাকারী সেই গৃহবধূর মৃত্যু

প্রকাশিত

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি-

মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে স্বামীর নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহননের চেষ্টাকারী অগ্নিদগ্ধ গৃহবধূ জিয়াসমিন বেগম (৩৮) মারা গেছে। চার দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে মঙ্গলবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে তার মৃত্যু হয়।

 

 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত শুক্রবার দুপুরে শ্রীনগর উপজেলার শ্যামসিদ্ধি ইউনিয়নের সেলামতি গ্রামের সিরাজুল ইসলাম তার স্ত্রী জিয়াসমিন (৪০) এর উপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালায়। স্বামীর নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে তিনি গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন। প্রতিবেশীরা উদ্ধার কারার আগেই তার গায়ের বেশীর ভাগ অংশ পুড়ে যায়। পরে  জিয়াসমিনের পরিবারের লোকজন তার শ্বশুর বাড়ি থেকে উদ্ধার করে শ্রীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আশংকাজনক অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে ৪ দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে মঙ্গলবার সকাল ৮টায় তার মৃত্যু হয়।

জিয়াসমিন কোলাপাড়া ইউনিয়নের ব্রাহ্মন পাইকসা গ্রামের মৃত আ. আজিজ চৌধুরীর মেয়ে। প্রায় ২৩ বছর পূর্বে সেলামতি গ্রামের সিরাজুল ইসলামের সাথে তার বিয়ে হয়। তাদের সংসারে প্রতিবন্ধী এক মেয়ে ও মালয়েশিয়া প্রবাসী এক ছেলে রয়েছে।

শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ইউনুচ আলী জানান, ঘটনার পর থেকে জিয়াসমিনের স্বামী পলাতক রয়েছে। তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় সোমবার রাতে জিয়াসমিনের বড় ভাই মো. সিরাজুল ইসলাম আরিফ বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১১ (খ) ধারায় মামলা করেন।