ভন্ড রাজনীতিকদের বিরুদ্ধে নচিকেতার গান ‘কাটমানি’ ভাইরাল

প্রকাশিত

সায়নী –

গত মঙ্গলবার তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা-কর্মীদের তোলাবাজি/ চাঁদাবাজির রুপি (কাটমানি) ফেরত দিতে নির্দেশ দিয়েছিলেন দলনেত্রী তথা পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। সেই কাটমানি নিয়ে ইউটিউবে একটি গান বাঁধলেন সঙ্গীতশিল্পী নচিকেতা চক্রবর্তী। আর মুহুর্তের মধ্যেই ভাইরাল হল নচিকেতার সেই ‘কাটমানি’ গান।
নচিকেতা ভন্ড রাজনীতিকদের বিরুদ্ধে এই গান গাওয়া বলে জানিয়েছেন। যে সমস্ত নেতারা ‘কাটমানি নিয়েছেন, এবার তাদের সাধারণ মানুষের রাগের মুখে পড়তে হবে বলেও গানে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি। যদিও গানটিতে কোন দলের নাম উল্লেখ করা হয়নি, শুধুমাত্র দাদা এবং দিদিমনি বলা হয়েছে। বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে ইতিমধ্যে গানটি ব্যাপক ভাইরাল হয়েছে।

কাটমানি নিয়ে নচিকেতার গান গাওয়ার সাহসকে কুর্নিশ জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা বলিউড গায়ক বাবুল সুপ্রিয়। ট্যুইট করে তিনি লিখেছে ‘মানুষের মনের কথা গানের মাধ্যমে সঠিক মাত্রার স্যাটায়ার-এর তড়কা লাগিয়ে সকলের সামনে নিয়ে আসার জন্য নচিকতা-দাকে আমার অশেষ ধন্যবাদ।’

মঙ্গলবার কলকাতার নজরুল মঞ্চে আয়োজিত রাজ্যের সব পৌরসভার কাউন্সিলর ও চেয়ারম্যানদের নিয়ে বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী। কর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন গরিবদের জন্য ‘বাংলার বড়ি’ তৈরি করা হয়েছে। সেখান থেকে ২৫ হাজার রুপি করে কমিশন নেওয়া হয়েছে। সমব্যর্থী ও কন্যাশ্রী প্রকল্প থেকেও ২০০ রুপি করে কমিশন নেওয়া হয়েছে। সরকারি প্রকল্প ‘বাংলার বাড়ি’ সকলের জন্য। ২৫ শতাংশ কাটমানি যারা নিয়েছেন তাদের মধ্যে অনেকেই বিজেপিতে পালিয়ে গেছেন। যারা এই কাটমানি নিয়ে এখনও দলে আছেন, তারা এই রুপি ফেরত দেবেন। ভবিষ্যতে এমন কাজ করবেন না।’

 

 

মুখ্যমন্ত্রীর ওই বার্তার পরই কাটমানি ফেরত চেয়ে জেলায় জেলায় কাটমানি ফেরতের দাবিতে তুমুল বিক্ষোভ শুরু হয়। কোথাও পঞ্চায়েত প্রধান, কোথাও দলের পদাধিকারী কিংবা পৌরসভার কাউন্সিলারদের বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষ সরব হয়েছেন।

শুক্রবার তৃণমূল ভবনে নদীয়া জেলার দলীয় নেতাদের সাথে এক বৈঠকেও ফের ‘কাটমানি’ প্রসঙ্গটি তুলে ধরেন। তিনি পরিস্কার জানিয়ে দেন কারা কারা রুপি খাচ্ছে সব খবর তার কাছে রয়েছে। আর্থিক দুর্নীতি শাখার পাশাপাশি লোকায়ুক্ত মোতাবেক গ্রেফতার পর্যন্ত করা হতে পারে বলেও সতর্কবার্তা দেন মমতা।

দলনেত্রীর এই নির্দেশের মধ্যেই ‘কাটমানি’ নিয়ে দলের বীরভূমের সাংসদ শতাব্দী রায়ের একটি মন্তব্যে অস্ততিতে পড়ে দল। শতাব্দী জানান যারা কাটমাটি নেয় তাদের একাংশ চাপে পড়লেও এবাকে এই জিনিস বন্ধ করা যাবে না। কাটমানি নেওয়া অভিযুক্তদের ওপর সাধারণ মানুষ চড়াও হবেন বলেও মনে করেন তিনি। এতে অশান্তি ও সহিংসতা বাড়বে ছাড়া কমবে না।

শতাব্দীর পর মমতা ঘনিষ্ট সঙ্গীতশিল্পী নচিকেতার এই গান। ২০১১ সালেও বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যের তৎকালীন বিরোধী নেত্রী মমতা ব্যনার্জি যখন বাম সরকারের অবসান ঘটাতে পরিবর্তনের ডাক দিয়েছিলেন, সেই সময়ও তাতে সামিল হয়েছিলেন এই নচিকেতাই।