নিউজিল্যান্ডকে সহজেই হারাল অস্ট্রেলিয়া

প্রকাশিত

নিউজিল্যান্ডকে সহজেই হারাল অস্ট্রেলিয়া। টানা পঞ্চম জয়ে শীর্ষস্থানটা আরো মজবুত করল বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। গত বিশ্বকাপের দুই ফাইনালিস্টের লড়াইয়ে লর্ডসে শনিবার অস্ট্রেলিয়া জিতেছে ৮৬ রানে। ২৪৪ রানের লক্ষ্য তাড়ায় মিচেল স্টার্কের তোপে পড়ে নিউজিল্যান্ড গুটিয়ে যায় ১৫৭ রানে, ৪৩ ওভার ৪ বলে। প্রথম বোলার হিসেবে বিশ্বকাপে তিনবার পাঁচ উইকেট নেওয়ার কীর্তি গড়েন স্টার্ক।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ৯২ রানেই ৫ উইকেট হারিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। এরপর উসমান খাজা ও অ্যালেক্স ক্যারির ফিফটিতে শেষ পর্যন্ত ৯ উইকেটে ২৪৩ রান করে বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

একাধিক জীবন পাওয়া খাজা ১২৯ বলে ৫ চারে করেন সর্বোচ্চ ৮৮ রান। উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান ক্যারি ৭২ বলে ১১ চারে করেন ৭১ রান। ষষ্ঠ উইকেটে এই দুজন গড়েন ১০৭ রানের বড় জুটি।

শেষ ওভারে পরপর তিন বলে খাজা, স্টার্ক ও জেসন বেহরেনডর্ফকে ফিরিয়ে নিউজিল্যান্ডের প্রথম বোলার হিসেবে বিশ্বকাপে হ্যাটট্রিক করেন বোল্ট। এবারের বিশ্বকাপে এটি দ্বিতীয় ও সব মিলিয়ে ১১তম হ্যাটট্রিক। কদিন আগে আফগানিস্তানের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেন ভারতের পেসার মোহাম্মদ শামি।

১০ ওভারে ৫১ রানে ৪ উইকেট নেন বোল্ট। লোকি ফার্গুসন ও জেমস নিশাম নেন ২টি করে উইকেট।

 

 

লক্ষ্য তাড়ায় শুরু থেকেই ধীরগতিতে রান তুলেছে নিউজিল্যান্ড। হয়নি বড় কোনো জুটিও। পাওয়ার প্লেতে দলে ফেরা হেনরি নিকোলসের উইকেট হারিয়ে নিউজিল্যান্ড তুলতে পারে মাত্র ৩১ রান।

৪২ রানে দুই ওপেনারকে হারানোর পর তৃতীয় উইকেটে ৫৫ রানের একটা জুটি গড়েছিলেন কেন উইলিয়ামসন ও রস টেলর। কিন্তু এ জুটি ভাঙার পর নিয়মিত বিরতিতেই উইকেট হারায় কিউইরা।

সর্বোচ্চ ৪০ রান করেন অধিনায়ক উইলিয়ামসন। টেলরের ব্যাট থেকে আসে ৩০ রান। দুই অঙ্ক ছুঁয়েছেনই আর মাত্র তিনজন- মার্টিন গাপটিল (২০), টম ল্যাথাম (১৪) ও মিচেল স্যান্টনার (১২)।

স্টার্ক ৯ ওভার ৪ বলে ২৬ রানে নেন ৫ উইকেট। বাঁহাতি পেসার এবারের বিশ্বকাপে দ্বিতীয়বারের মতো পাঁচ উইকেট নিলেন। গত বিশ্বকাপে নিয়েছিলেন একবার। এবারের বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি স্টার্কের মোট উইকেট হলো ২৪টি।

টানা পঞ্চম ও সব মিলিয়ে এবারের বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার সপ্তম জয় এটি। আট ম্যাচে অসিদের পয়েন্ট হলো ১৪, নিশ্চিত হলো সেরা দুইয়ে থাকা। সমান ম্যাচে দ্বিতীয় হারের স্বাদ পাওয়া নিউজিল্যান্ড ১১ পয়েন্ট নিয়ে তিনে আছে।