ঢাবি কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিতে আগুন, শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক

প্রকাশিত

Sharing is caring!

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিতে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে। এতে আতঙ্কিত হয়ে বেরিয়ে আসেন শিক্ষার্থীরা। তবে তাৎক্ষনিকভাবে ক্ষয়ক্ষতির কোনো খবর পাওয়া যায়নি।
রোববার (৭ জুলাই) সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
তবে আগুন লাগার ১৫ মিনিটের মধ্যে আগুন নেভাতে সক্ষম হয় কর্মকর্তা-শিক্ষাথীরা। তবে এতে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে ভেতরে পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের মধ্যে। বের হওয়ার জন্য ইমার্জেন্সি এক্সিট ওয়ে না থাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি হয়। এতে শিক্ষার্থীদের মনে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়। এদিকে ৭ লাখ বই নিয়ে গড়া এই লাইব্রেরি বাংলাদেশের অন্যতম লাইব্রেরি।
প্রত্যক্ষদর্শীদের সুত্রে জানা যায়, সকাল সাড়ে ১০ টার সময় নিচতলার সার্কিট বোর্ডে আগুন লাগে। সেখানে এসি তারে ও আগুন লাগে। একইভাবে লাইব্রেরির ৩ তলায় আগুন লাগে।
আগুন লাগার ২৫ মিনিট পর ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি আসে। ততক্ষণে আগুন ফায়ার এক্সটিংগুইসার মাধ্যমে গ্যাসের মাধ্যমে আগুন নেভানো হয়।
এদিকে আগুন লাগার পর ভেতেরে অবস্থিত প্রায় ২ হাজার শিক্ষার্থী-কর্মকর্তার মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়। একটা সিড়ি দিয়ে নামতে গিয়ে জটলা তৈরি হয়।
জানতে চাইলে ভেতরে অবস্থানকারী ঢাবি শিক্ষার্থী লিমন ইসলাম বলেন, আমরা হাজারের উপর শিক্ষার্থী ভেতরে আছি। কিন্তু আগুন লাগার পর একই সিঁড়ি দিয়ে নামতে গিয়ে জটলা তৈরি হয়। বড় ঘটনা ঘটলে আমরা হয়তো জটলার মধ্যে বের হতে পারতাম না।
এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এ কে এম গোলাম রাব্বানী বলেন,  ঘটনা শোনার সঙ্গে সঙ্গে আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি।  বড় ধরনের কোনো ক্ষতি হয় নি।  তবে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত লাইব্রেরি বন্ধ থাকবে বলে জানান তিনি।