চীন বুঝতে পেরেছে রোহিঙ্গা সমস্যা দ্রুত সমাধান হওয়া উচিৎ : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত

Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার: মিয়ানমারের সঙ্গে চীনের ভালো সম্পর্ক রয়েছে। তারা উপলব্দি করতে পেরেছেন যে, রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে অবস্থান করা একটা চাপ। তারাও মনে করেন, বিষয়টি দ্রুত সমাধান হওয়া উচিৎ বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
সোমবার (৭ জুলাই) প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে সদ্য সমাপ্ত চীন সফর নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।
সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর কাছে জানতে চাওয়া হয়, রোহিঙ্গাদের ফেরানোর প্রশ্নে চীনা প্রধানমন্ত্রী ও প্রেসিডেন্টের এমন কোনও তথ্য আছে কিনা, যা বাংলাদেশের জন্য সুখবর বিবেচনা করা যেতে পারে?
প্রধানমন্ত্রী বলেন, চীনের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আমার বৈঠক হয়েছে। তিনি আশ্বাস দিয়েছেন তারা রোহিঙ্গাদের ফেরানোর বিষয়টি দেখবেন। আলোচনার মাধ্যমে এ সমস্যা সমাধানে প্রয়োজনে তারা আবারো মন্ত্রীকে মিয়ানমারে পাঠাবে। এটা কি সুখবর মনে হচ্ছে না? নাকি দুঃখের খবর মনে হচ্ছে?’
তিনি বলেন, ‘এটা ঠিক যে চীন বরাবরই মিয়ানমারের সঙ্গে আছে। কিন্তু বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গারা যে একটা সমস্যা, এটা তারা উপলব্ধি করতে পারছেন। তারা সবসময় মনে করছেন বিষয়টির দ্রুত সমাধান হওয়া উচিত। এজন্য তাদের যা করণীয় তারা তা করবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন।’
এদিকে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে গ্যাসের দাম বৃদ্ধির বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দাম যেটুকু বাড়ানো হয়েছে, সেটুকু যদি বাড়ানো না হয় তাহলে আমাদের সামনে দুটি পথ আছে- হয় আমাদের জিডিপি প্রবৃদ্ধি না বাড়ে, সেজন্য এলএমজি আমদানি কমিয়ে দিয়ে এনার্জির ক্ষেত্র সংকুচিত করে ফেলব। অর্থনীতির উন্নতি হবে না। আর যদি উন্নতি চান এটাকে মেনে নিতে হবে। শুধু আমরা না গ্যাস আমদানিকারক দেশও এটা মেনে নেয়।
তিনি বলেন, আমি উন্নয়নের কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য অর্জনে এই অঞ্চলে শান্তি ও স্থিতিশীলতার ওপর গুরুত্বারোপ করি। রোহিঙ্গা সঙ্কটের কারণে এই শান্তি ও স্থিতিশীলতা বিঘ্নিত হাতে পারে বলে আমি উল্লেখ করি।