নির্মাণ কাজ শেষ না হতেই ভাঙলো তেঁতুলিয়া ইকোপাক বনবিভাগের বাউন্ডারী ওয়াল

প্রকাশিত

তেঁতুলিয়া (পঞ্চগড়) প্রতিনিধি- নির্মাণ কাজ শেষ না হতেই মাত্র দু’মাসের মাথায় ভেঙ্গে গেল তেঁতুলিয়ার বনবিভাগের ইকোপার্কের বাউন্ডারী ওয়াল। প্রায় ১৫ একর বনজ ও ফলদ বাগানের রক্ষনা-বেক্ষণের জন্য গত মে ও জুন মাসে প্রায় ৩০ লক্ষাধিক টাকা ব্যয়ে তেঁতুলিয়া ইকোপার্কটির বাউন্ডরিী ওয়াল নির্মাণ করা হয়। নির্মাণের ১৫ দিনের মাথায় ইকোপার্কটির বাউন্ডারী ওয়ালটি গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে প্রায় দেড়শ ফিট ভেঙ্গে পড়েছে। এছাড়া নির্মাণাধীন বাউন্ডারী ওয়ালের আরও একশ ফিট ফাটল দেখা দিয়েছে।
নামপ্রকাশ্যে অনিচ্ছিুক কয়েকজর এলাকাবাসী জানান, বাউন্ডারী ওয়াল নির্মাণের সময় নি¤œমানের সিমেন্ট, বালু, ইট ও পাথর ব্যবহার করা হয়েছে। আর বাউন্ডারী ওয়াল নির্মাণের পর সঠিকভাবে পানি সেচ করেনি। এ বিষয়ে বন বিভাগের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে একাধিকবার মৌখিক অভিযোগ করলেও কোন গুরুত্ব দেয়নি। ফলে মাস যেতে না যেতেই বাউন্ডারী ওয়ালের প্রায় দেড়শ ভিট ভেঙ্গে পড়েছে।
একইভাবে ইকো কর্টেজ বন বিভাগের প্রায় অর্ধকোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণাধীন বাংলোটির ভিতরেও একই অবস্থায় নির্মাণ করা হয়েছে। দূরদূরান্ত থেকে কোন পর্যটক ছায়ানিবিড় পরিবেশে বাংলাটিতে রাত যাপনের ইচ্ছা পোষন করলেও প্রয়োজনীয় সরঞ্জামাদি যেমন খাট, লেপ, তোষক ইত্যাদি মান সম্মত না হওয়ায় কেউ থাকতে পারছে না। ফলে ইকোপার্কের অর্ধকোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণাধীন বাংলোটি দিনদিন ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়ছে। এদিকে কর্তব্যরত কর্মকর্তার রুদ্র আচরনের প্রতি রয়েছে এলাকাবাসির ক্ষোভ। এলাকাবাসী বনবিভাগের নির্মাণাধীন কাজের অনিয়ম, দুর্নীতি খতিয়ে দেখার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষসহ দুদকের আঞ্চলিক অফিস দিনাজপুর কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।
এ ব্যাপারে ডিভিশনাল ফরেস্ট অফিসার (ডিএফও) আঃ রহমান এর সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, পুরো বাগানের পানি একদিক দিয়ে গড়িয়ে আসায় বাউন্ডারী ওয়াল পানির চাপে ভেঙ্গে পড়েছে। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার ভেঙ্গে পড়া দেয়াল মেরামত করে দিবে।