ফরিদপুরের পদ্মা আড়িয়াল খাঁয় বন্যার পানি বিপদসীমার উপরে

প্রকাশিত

মাহবুব হোসেন পিয়াল,ফরিদপুর-
ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার পদ্মা ও আড়িয়াল খাঁ নদে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বন্যার পানি বিপদসীমার ৬৬ সে: মি: উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বন্যায় নতুন নতুন এলাকা প্রালাবিত হয়েছে ও নদী ভাঙ্গনে তীব্রতা দেখা দিয়েছে । উক্ত এলাকাগুলোয় পানি উন্নয়ন বোর্ড জিও ব্যাগ ফেলেও নদী ভাঙ্গন রোধ করতে পারচ্ছে না। পদ্মা আড়িয়াল খাঁর চর অঞ্চলের নারিকেল বাড়িয়া, চর নাছিরপুর, চর মানাইড়, ঢেউখালী ও আকটেরচর আংশিক এলাকাসহ ৫টি ইউনিয়নে বন্যায় ভয়াবহ রুপ দেখাদিয়েছে। গত এক সপ্তাহে উপজেলার চর মানাইড় ইউনিয়নের আড়িয়াল খাঁ নদের ভাঙ্গনে জাজিরা কান্দি, আদিলউদ্দীন মোল্যা কান্দি, আমির খাঁ খান্দি, কালাই মাতুব্বরের কান্দি গ্রামের মূল্যবান গাছপালা, ফসলি জমি, শতাধিক ঘরবাড়ি নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে ।

 

 


চর বন্দর খোলা ফাজিল মাদ্রাসা, চর মানাইড় ইউনিয়ন পরিষদ ভবন, নাদীরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ বসতবাড়ি বর্তমানে হুমকির চরম মুখে রয়েছে । উক্ত এলাকার ভাঙ্গন কবলিত পরিবার গুলো তাদের শেষ সম্বলটুকু বসতবাড়ি হারিয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে খোলা আকাশের নীচে মানবেতর জীবন যাপন করছে।
সরকারি তথ্য মতে, চর মানাইড় ইউনিয়নের ৫১টি ও ঢেউখালি ইউনিয়নের ৩টি পরিবারসহ উপজেলার চরনাছিরপুর, নারিকেল বাড়িয়া ইউনিয়নের প্রায় ২হাজার পরিবার পানি বন্দি অবস্থায় মানবেতর জীবন যাপন করছে। গত ২দিনে বন্যার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় উপজেলার কৃষি অফিসের সূত্রে জানা যায়, ৭৩২ হেক্টর ফসলি জমি বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে ।
এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার পূরবী গোলদারের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, নদী ভাঙ্গনে বিলীন হওয়া ৫৪টি পরিবারকে জিআর এর বরাদ্দ থেকে ৩০ কেজি করে চাউল দেয়া হয়েছে এবং ত্রান ততপরাতা অব্যহত থাকবে।