মাদারীপুরে ধর্ষণের শিকার দুই শিশু, মামলা নেয়নি রাজৈর থানা পুলিশ

প্রকাশিত

মাদারীপুর প্রতিনিধি-

মাদারীপুরে পৃথকভাবে দুই শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। তাদের মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, শহরের শকুনী এলাকায় শাহাদাত হোসেন পলাশ বেড়াতে আসে এক আত্মীয়ের বাড়িতে। বাসায় কেউ না থাকায় সেই বাসারই ৪ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণ করে। আত্মীয়তার সুবাদে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করে। পরে মাদারীপুর সদর থানায় এই ঘটনায় মামলা হলেও আসামি গ্রেফতার হয়নি। নির্যাতিতা শিশুটির মা বলেন, আমার মেয়েকে ১৫ জুলাই দুপুরে বাসার ছাদে নিয়ে ধর্ষণ করেছে। যে ধর্ষণ করেছে সে আমার মামাতো ভাই। উনি এর আগে ৪টি বিয়ে করেছে। এরপর আত্মীয়রা বিষয়টি মীমাংসা করে দেয়ার জন্য সময়ক্ষেপণ করে। আমি বিচার না পেয়ে থানায় মামলা করেছি। কিন্তু আসামি গ্রেফতার হয়নি।

 

 

এদিকে প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার পথে গত ২০ জুলাই সকালে মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার শাখারপাড় গ্রামের চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ুয়া এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনায় মামলা করতে গেলে প্রভাবশালীদের কারণে মামলা নেয়নি রাজৈর থানা পুলিশ।

ওই ছাত্রীর বাবা বলেন, আমার মেয়ে প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার পথে মোশারফ মোল্লার ছেলে রেজাউল জোর করে ফাঁকা বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে স্থানীয় সালিশদার রাজু মোল্লা, তাজু মোল্লা, দবির মোল্লা বিষয়টি মীমাংসা করে দেয়ার কথা বলে এবং আমাদের মামলা করতে নিষেধ করে। এভাবে কয়েকদিন যাওয়ার পরেও মীমাংসা করে দেয়নি। এরপর থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা নেয়নি। আমরা গরীব মানুষ। আমাদের টাকা নেই। তাই আমাদের পক্ষে মানুষও নেই।

মাদারীপুরের ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার উত্তম প্রসাদ পাঠক বলেন, পৃথক দুই ধর্ষণের ঘটনায় পুলিশ তৎপর রয়েছে। মামলা হবে এবং  দ্রুত সময়ের মধ্যেই আসামিও গ্রেফতার করা হবে।