তরুণীকে দুইদিন আটকে রেখে গণধর্ষণ, প্রেমিক গ্রেফতার

প্রকাশিত

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি-

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলায় এক তরুণীকে দুইদিন আটকে রেখে গণধর্ষণের অভিযোগে ওই তরুণীর প্রেমিকসহ ৫ জনকে আটক করেছে পুলিশ। রূপগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রফিকুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেফতার পাঁচ ব্যক্তি হলেন- রাসেল মিয়া, আশিক মিয়া, শাকিল মিয়া,  সামছু দোহাই ও শের আলী। এর মধ্যে রাসেল মিয়া ভুক্তভোগী তরুণীর প্রেমিক বলে পুলিশ জানতে পেরেছে।

 

 

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, পিতলগঞ্জ এলাকার গোলজার মিয়ার ছেলে রাসেল মিয়ার সঙ্গে কিছুদিন আগে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে পরিচয় হয় ওই তরুণীর। কথোপকথনের এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। পরে গত বৃহস্পতিবার তারা কাঞ্চন ব্রীজের নীচে দেখা করার সিদ্ধান্ত নেয়। রাসেলের কথামতো রাত আটটার দিকে ওই তরুণী কাঞ্চন ব্রীজের নিচে আসলে রাসেল তার বাবা মায়ের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেয়ার কথা বলে তাকে একটি সিএনজিযোগে পিতলগঞ্জ পশ্চিমপাড়া এলাকায় একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে মারধর করে এবং হত্যার ভয় দেখিয়ে রাসেল ও তার ৪ বন্ধু মিলে তাকে গণধর্ষণ করে।

দু’দিন পালাক্রমে ধর্ষণের পর তরুণী অসুস্থ হয়ে পড়লে শুক্রবার মধ্যরাতে তাকে রাস্তায় ফেলে রেখে পালিয়ে যায় রাসেল ও তার বন্ধুরা। পরে ঐ তরুণী এক সিএনজি চালকের সহায়তায় সেখান থেকে রূপগঞ্জ থানায় গিয়ে নিজে বাদী হয়ে রাসেলসহ পাঁচজনকে আসামি করে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। পরে পুলিশ পিতলগঞ্জ পশ্চিমপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে পাঁচজনকে গ্রেফতার করে।

এসআই রফিকুল ইসলাম এ প্রসঙ্গে জানান, “গণধর্ষণের ঘটনায় দায়ের করা মামলায়  গ্রেফতার পাঁচ আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তারা ধর্ষণের অভিযোগ স্বীকার করেছে। তাদের আদালতে উপস্থাপন করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”