ইন্দোনেশিয়ায় সাতদিনের শিক্ষা সফর করে ফিরলেন তেঁতুলিয়ার আকরাম হোসেন জাকারিয়া

প্রকাশিত

এস কে দোয়েল, তেঁতুলিয়াঃ
মর্ডান স্কুল ম্যানেজমেন্ট প্রাক্টিস প্রোগ্রামের আওতায় সাতদিন ঘুরে আসলেন তেঁতুলিয়ার রত্মগর্ভা পরিবারের কৃতি সন্তান আকরাম হোসেন জাকারিয়া। গত ৩১ জুলাই রাত ২টায় তিনি ফ্লাইটে ইন্দোনেশিয়া যান। সাতদিনের শিক্ষা সফরে তিনি ইন্দোনেশিয়ার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যান। সেখানকার এসডিএন৫ গুনংপূত্রি এলিমিনেটরি স্কুল পরিদর্শন করেন। সফরের তৃতীয় দিনে জাকার্তার ‘নিগিরি ইউনিভার্সিটাস নিগিরি জাকার্তায় কারিকুলাম বিষয়ে প্রশিক্ষণ নিয়ে সনদ লাভ করেন।

চতুর্থ দিনে এঞ্জেল দ্বীপ, সুমাত্রা মিউজিয়ামসহ সেখানকার অনেক দর্শনীয় স্থান ও জাতীয় মসজিদ পরিদর্শন করেন। পঞ্চম দিনে আরবান এরিয়ার স্কুল হিসেবে ‘রাওয়ামাংগুন এলিমিনেটরি স্কুল’ পরিদর্শনসহ ‘ইউনিভারসিটাস নিগিরি জাকার্তা’য় কারিকুলাম বিষয়ে সেমিনারে অংশগ্রহণ করেন। ইন্দোনেশিয়ায় মডার্ণ স্কুল ম্যানেজমেন্ট প্রাক্টিস প্রোগ্রামের আওতায় গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা সফর সফলভাবে সম্পন্ন করে শুক্রবার দেশে ফিরেন।

 

 

আকরাম হোসেন জাকারিয়া দেশের উত্তর উপজেলা তেঁতুলিয়ার আজিজনগর গ্রামের রত্মগর্ভা মায়ের গর্বিত সন্তান। বাবা ইয়াসিন আলী। তিনিও ছিলেন স্কুলের প্রধান শিক্ষক। চার ভাইয়ের মধ্যে আকরাম হোসেন জাকারিয়া দ্বিতীয়। তিনি জামরিগুরি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।
বড় ভাই এরশাদ হোসেন জুলফিকারও প্রধান শিক্ষক। সেজো ভাই একেএম মিজানুর রহমান সরকারের স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব। আর ছোট ভাই জায়িদ ইমরুল বিসিএস ক্যাডারে সহকারি কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।
সংস্কৃতিমনা আকরাম হোসেন জাকারিয়া দীর্ঘ সময় সরকারি প্রোগ্রামসহ বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন প্রোগ্রামে উপস্থাপনা করে আসছেন। অভিনয় করেছেন বিভিন্ন মঞ্চ নাটকেও। শিক্ষক হিসেবে শিক্ষার্থীদের কাছে তিনি অনুপম। তাঁর হাতের লেখাও চমৎকার।

২০০৯ ও ২০১৮ সালে তিনি জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ শিক্ষক হিসেবে নির্বাচিত হন। দেশের বাইরে শিক্ষা প্রাচুর্য্যের ইন্দোনেশিয়ার মতো একটি দেশে শিক্ষা সফর সফলভাবে শেষ করে দেশে ফিরে আসায় এলাকায় বইছে প্রশংসার বন্যা।