মঠবাড়িয়ায় হত্যার দায়ে যাবজ্জীবন কারাদন্ড

প্রকাশিত

পিরোজপুর প্রতিনিধি : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় সাবেক স্ত্রীকে হত্যার দায়ে মো. সাগর সরদার (৪৩) নামের এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদ-াদেশ দিয়েছেন পিরোজপুর আদালত। একই সাথে ২০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদ-াদেশ হয়। বৃহস্পতিবার বিকেলে পিরোজপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ সামছুল হক এ রায় ঘোষণা করেন। দ-প্রাপ্ত সাগর ভোলার মনপুরা উপজেলার সাকুচিয়া গ্রামের বাসিন্দা।
মামলা সূত্রে জানাযায়, মঠবাড়িয়া উপজেলার বড়শিংগা গ্রামের আবদুল হালিম মৃধার মেয়ে রাবেয়া আক্তারের (৩০) সাথে সাগরের দ্বিতীয় বিয়ে হয়। বিয়ের পর ওই দম্পতি ঢাকায় বসবাস করতেন। বিয়ের পর থেকে তাদের মধ্যে দাম্পত্যকলহ মুরু হয়। এর মধ্যে তাদেও একটি কন্য সন্তান জন্ম হয়। এরপর ২০১৬ সালের প্রথম দিকে রাবেয়া মেয়েকে নিয়ে বাবার বাড়ি মঠবাড়িয়া চলে আসে এবং স্বামী সাগরকে তালাক দেন।
স্বামী সাগর তালাক পাওয়ার পর স্ত্রী রাবেয়াকে নেবার জন্য জোর করতেন। কিন্তু রাবেয়া রাজি না হওয়ায় ২০১৬ সালের ২২ ডিসেম্বর রাতে সাগর তাঁকে ছুরিকাঘাত করেন। এ সময় রাবেয়ার ডাক-চিৎকারে প্রতিবেশিরা সাগরকে আটক করে পুলিশে দেয় এবং রাবেয়াকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে রাবেয়ার মৃত্যু হয়।
এ ঘটনায় নিহত রাবেয়ার বাবা আবদুল হালিম মৃধা বাদী হয়ে মঠবাড়িয়া থানায় সাগর সরদারকে আসামি করে এবটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ২০১৭ সালের ১৩ মার্চ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মঠবাড়িয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাহাবুবুর রহমান আসামি সাগরের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেন। মামলায় ১১ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে বিচারক আসামির উপস্থিতিতে রায় ঘোষণা করেন। সরকার পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন সহকারী সরকারি কৌঁসুলি (এপিপি) জহুরুল ইসলাম।