রুয়েট ছাত্রীর শ্লীলতাহানির ঘটনায় অভিযুক্ত চালক আটক

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী –

রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) ছাত্রীর শ্লীলতাহানির ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে এক ইজিবাইক (অটোরিকশা) চালককে আটক করেছে পুলিশ। আটক ব্যক্তির নাম শামসু ডলার ওরফে সুমন (৩৫)। তিনি নগরীর ভেড়ীপাড়া এলাকার মৃত আমান উল্লাহ রেন্টুর ছেলে।

রুয়েটের ঐ ভুক্তভোগী ছাত্রীর অভিযোগ থেকে জানা যায়, ১৯ তারিখ বিকালে চলন্ত অটোতে তার সঙ্গে থাকা অপরিচিত কয়েকজন যাত্রী তার শ্লীলতাহানি ঘটায়। এসময় তিনি চালককে অটো থামাতে বললেও চালক তা করেননি। পরবর্তীত নগর ভবনের কাছে তাকে অটো থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়া হয়। এ ঘটনার পর সন্ধ্যায় ছাত্রী তার ফেসবুকে বিষয়টি তুলে ধরেন। যা তাৎক্ষণিক রাজশাহীতে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়। পরদিন ২০ আগস্ট তিনি নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ করেন।

রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার গোলাম রুহুল কুদ্দুস বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, রুয়েটের ছাত্রীর ঘটনাটি তারা গুরুত্বের সঙ্গে নিয়ে তদন্ত শুরু করেন। পরবর্তীতে তদন্ত করে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশাটি শনাক্ত করা হয়। অটোর পিছনে সাদা রঙ দিয়ে বড় করে ‘আল্লাহু আকবার, সাদিয়া, তাওসিক পরিবহন, নামাজ কায়েম করুন’ লিখা আছে। যা থেকে অটোটি শনাক্ত করতে সুবিধা হয়।

পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও জানান, অভিযুক্ত সুমন প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে যে ঐদিন ছাত্রী তার অটোতে ছিলেন। তবে ছাত্রী যে অভিযোগ করেছেন তা সঠিক নয়। আর অটোতে থাকা অন্য অভিযুক্ত যাত্রীদের কাউকেই সে চেনে না। মামলা তদন্তের স্বার্থে ঘটনার সঙ্গে অপর অভিযুক্ত যাত্রীদের চিহ্নিত করতে আদালতের মাধ্যমে অভিযুক্ত সুমনকে সাতদিনের পুলিশ হেফাজতের আবেদন জানানো হবে।