নারায়ণগঞ্জে ১৩ বছরের কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ,পরিবারকে হুমকি

প্রকাশিত

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি-

নারায়ণগঞ্জে রূপগঞ্জে ১৩ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার রাতে উপজেলার তারাবো পৌরসভা বিশ্বরোড খালপাড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। মঙ্গলবার দুপুরে ধর্ষিতার বাবা বাদী হয়ে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

ওই কিশোরির বাবা জানান, পরিবার নিয়ে তারাবো খালপাড় এলাকায় ভাড়া থাকেন। তার মেয়েকে ওই বাড়ির ভাড়াটিয়া কুমিল্লা জেলার নয়ন ও কিশোরগঞ্জ জেলার সোহেল ওরফে ছোট সোহেল দীর্ঘদিন যাবৎ বিভিন্ন সময়ে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। ঘটনা টের পেয়ে তিনি ও তার স্ত্রী বাড়ির মালিককে জানিয়ে তাদেরকে তার মেয়েকে উত্যক্ত করতে নিষেধ করি।

এরই জেরে গত সোমবার সন্ধায় তার মেয়ে রান্না করা ময়লা ফেলার জন্য ছাদে উঠে। অনেক সময় হয়ে যায় ছাদ থেকে না নামলে তিনি ও তার স্ত্রী ছাদে গিয়ে দেখেন তার মেয়ে ছাদে নাই। পরে তিনি ও তার স্ত্রী এলাকার বিভিন্ন স্থানে খোঁজখুঁজি করলে মেয়েকে পায়নি। এক পর্যায় দেখেন যে নয়নের ঘরের সামনে সোহেল দাঁড়িয়ে রয়েছে। ভিতর থেকে ঘরের দরজা আটকানো। দরজার সামনে তার মেয়ের একটি জুতা পড়ে রয়েছে। তিনি ও তার স্ত্রী দরজার সামনে যেতেই সোহেল দৌড়ে পালিয়ে যায়।

পরে বাড়িওয়ালার স্ত্রীকে ডেকে দরজা খোলার পর তার মেয়ে কান্নাজড়িত অবস্থায় জানায়, নয়ন ও সোহেল তার মুখ চেপে তাকে ছাদ থেকে নয়নের ঘরে নিয়ে যায়। পরে সোহেল বাহিরে দাঁড়িয়ে থাকে আর নয়ন তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

পরে বাড়ির মালিক আবু মাতব্বর, তার ভাই কাশেম মাতব্বর, ছেলে রমজান মাতব্বর ও আবু মাতব্বরের স্ত্রী এ ঘটনার সমাধানের আশ্বাস দেয়। কিন্তু পরবর্তীতে বাড়ির মালিক ধর্ষণকারীদের বিচার না করে তাদের অনুপস্থিতিতে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। ধর্ষণকারীদের বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে জানতে পেরে বাড়ির মালিককে জিজ্ঞাসা করলে বাড়ির মালিকসহ তার ভাই ও ছেলে তিনি ও তার স্ত্রীকে হুমকি দেন এ ঘটনা নিয়ে যেন আর বাড়াবাড়ি না করা হয়।। পরে রূপগঞ্জ থানায় এসে তিনি বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন।

রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল হাসান বলেন, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। ধর্ষকদের গ্রেফতার ও হুমকি প্রদানকারী বাড়ির মালিক ও তার পরিবারের লোকজনদের আটকের চেষ্টা চলছে।