বরিশালে স্ত্রীর লাশ রেখে পালালেন স্বামী

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদক বরিশাল-

বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার কবাই ইউনিয়নের শিয়ালঘুনি গ্রামে শিউলি বেগম নামে (৩০) এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রোববার বেলা ১১টার দিকে ওই গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তবে ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছার আগেই গৃহবধূর স্বামী মিলন ফকির বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যান।

 

 

স্থানীয়রা জানান, শিয়ালঘুনি গ্রামের দেলোয়ার ফকিরের ছেলে মিলন ফকিরের সঙ্গে প্রায় ১৪ বছর আগে পাবনার শিউলি বেগমের বিয়ে হয়। মিলন ফকির ও শিউলি দম্পতির দুই ছেলে সন্তান রয়েছে। বেশ কিছুদিন ধরে তাদের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলছিল। শনিবার রাতেও তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়। সকালে প্রতিবেশীদের ডেকে মিলন ফকির বলেন শিউলি বেগম গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। প্রতিবেশীরা পুলিশে খবর দিলে মিলন ফকির স্ত্রীর মরদেহ ফেলে পালিয়ে যান।

প্রতিবেশীদের ধারণা, শিউলি বেগমকে শ্বাসরোধে হত্যা করেছে স্বামী মিলন ফকির। এ কারণে পুলিশ আসার কথা শুনে মিলন ফকির পালিয়ে গেছেন।

বাকেরগঞ্জ থানা পুলিশের এসআই মো. হাবিব বলেন, শিয়ালঘুনি গ্রাম থেকে গৃহবধূ শিউলি বেগমের মরদেহ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থলে গিয়ে গৃহবধূর স্বামী মিলন ফকিরকে পাওয়া যায়নি। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পেলে বলা যাবে এটা হত্যা না আত্মহত্যা।