আবাসিক হোটেলে তরুণীকে ধর্ষণ, যুবকের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত

 নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল-

বরিশালে বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে আবাসিক হোটেলে নিয়ে এক তরুণীকে ধর্ষণের দায়ে নিখিল চন্দ্র শীল নামে এক যুবককে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

একই সঙ্গে তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। রোববার দুপুরে বরিশাল নারী ও শিশু নির্যাতন অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. আবু শামীম আজাদ আসামির উপস্থিতিতে এ রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত নিখিল চন্দ্র শীল ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার পূর্ব দপদপিয়া গ্রামের লক্ষ্মীচন্দ্র শীলের ছেলে। ধর্ষণের শিকার তরুণীর বাড়ি বরিশাল সদর উপজেলা রায়পাশা এলাকায়।

 

 

মামলার নথি থেকে জানা যায়, ২০১৪ সালের ডিসেম্বর মাসের প্রথম দিকে নিখিল ওই তরুণীর অভিভাবকদের কাছে বিয়ের প্রস্তাব পাঠান। পাশাপাশি তরুণীর সঙ্গে নিখিল চন্দ্রের বিয়ের কথা বার্তা চলতে থাকে।

এ সুযোগে তরুণীর সঙ্গে দেখা করতে চান নিখিল। তরুণীও দেখা করতে রাজি হন। ২০১৪ সালের ১১ ডিসেম্বর বিকেলে বরিশাল নগরীর বিবির পুকুর পাড়ে দেখা করেন তারা। সেখান থেকে তরুণীকে নগরীর পোর্টরোড ভূইয়া আবাসিক হোটেলের ২১ নম্বর কক্ষে নিয়ে যান নিখিল। আবাসিক হোটেলে ওই তরুণীকে স্ত্রী বলে পরিচয় দেন তিনি। সেখানে তরুণীকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন নিখিল।

এর কয়েকদিন পর তরুণীকে বিয়ে করতে অস্বীকার করেন নিখিল। এ ঘটনায় ২০১৫ সালের ১০ জুন বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানায় নিখিল চন্দ্র শীলের বিরুদ্ধে মামলা করেন তরুণী।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের এসআই শামীম হোসেন একই বছরের ২০ সেপ্টেম্বর নিখিলকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দেন। পাঁচজনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় নিখিলকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।