পটুয়াখালীতে অপহরনের ২০ দিন পর র‍্যাবের অভিযানে স্কুলছাত্রী উদ্ধার আটক-১

প্রকাশিত

রিপন,পটুয়াখালীঃ পটুয়াখালীতে অপহরনের ২০ দিন পর ৯ সেপ্টেম্বর র‌্যাব-৮ এর একটি বিশেষ আভিযানিক দল কোম্পানী অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রইছ উদ্দিন এর নেতৃত্বে  পটুয়াখালী জেলার সদর থানাধীন সবুজ বাগ এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে আবদুল হাই বিদ্যানিকেতন স্কুলের ৮ম শ্রেনী পড়ুয়া ১৩ বছর বয়সী অপহৃত ছাত্রী কে উদ্ধার করে ।

ঘটনার বিবরনে জানা যায় যে উক্ত অপহৃত ভিকটিম গত ২০ আগষ্ট ২০১৯ তারিখ সকাল আনুমানিক সাড়ে ৯টার সময় নিজ বাড়ী হতে স্কুলে যাবার উদ্দেশ্য বের হলে পথিমধ্যে তার গৃহ শিক্ষক মোঃ মাসুদ রানা শুভ (২৬) পিতাঃ মোস্তফা হাওলাদার সাং কচাবুনিয়া ২নং ব্রিজ থানা পটুয়াখালী সদর জেলা পটুয়াখালী ও তার সহযোগী মোছাঃ আকলিমা বেগম (৪৫) স্বামী ঃ মৃতঃ ফারুক মৃধা সাং সবুজবাগ ১ম লেন, থানা পটুয়াখালী সদর জেলা পটুয়াখালী ভিকটিম কে অপহরনপূর্বক অজ্ঞাত স্থানে আটকে রেখে ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষন করে।

 

 

ভিকটিমকে অনেক খোজাখুজির পর কোথাও না পেয়ে ভিকটিমের মা বাদী হয়ে গত ২১ আগষ্ট ২০১৯ তারিখ পটুয়াখালী সদর থানায় একটি সাধারন ডায়রী করেন (পটুয়াখালী থানার জিডি নং ৮৮৬, তারিখ ২১-০৮-২০১৯) এবং অপহৃত ভিকটিম উদ্ধারে লিখিত ভাবে র‌্যাবের সহয়োগিতা কামনা করেন । অভিযোগের ভিত্তিতে পটুয়াখালী র‌্যাব-৮ ক্যাম্প কর্তৃক অভিযান চালিয়ে সবুজবাগ ১ম লেনে অবস্থিত মনু ফকিরের বাড়ীর ভাড়াটিয়া মোছাঃ আকলিমা বেগম (৪৫) স্বামী ঃ মৃতঃ ফারুক মৃধা এর ভাড়া বাসার একটি কক্ষ হতে উক্ত অপহৃত ভিকটিম কে উদ্ধার করা হয় । এ সময় মূল অপহরনকারী মোঃ মাসুদ রানা শুভ (২৬) পিতাঃ মোস্তফা হাওলাদার কৌশলে পালিয়ে যায়। অপহরনের সহায়তা কারী মোছাঃ আকলিমা বেগম (৪৫) কে ঘটনাস্থল হতে হাতে নাতে আটক করা হয় ।

আটক কৃত আসামী ও পলাতক আসামী দের বিরুদ্ধে ভিকটিমের মা বাদী হয়ে পটুয়াখালী সদর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে অপহরনপূর্বক ধর্ষনের অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেন । আটককৃত আসামীকে পটুয়াখালী সদর থানায় হস্তান্তর করা হয় এবং পলাতক আসামী কে গ্রেফতারের প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে ।