নড়াইললে মধুমতী নদীতে নির্মানাধীন কালনা সেতুর কার্যক্রম বর্তমান অবস্থা

প্রকাশিত

নড়াইল প্রতিনিধিঃ-

 

 

আজ ১০ ই সেপ্টেম্বর নড়াইল জেলার লোহাগড়া থানার মধুমতী নদীর উপর চলমান নির্মানাধীন কালনা সেতুর বর্তমান কার্যক্রম দেখতে “চ্যানেল সিক্স ” এর নড়াইল জেলা প্রতিনিধি আমি কামরুল হাসান সকাল এগারোটার সময় কালনা সেতু নির্মানাধীন চলমান কাজের গেইটে উপস্থিত হই।গেইটে কর্মরত নিরাপত্তা প্রহরী আমার পরিচয় ও অবগত হওয়ার কারন জিজ্ঞাসা করেন।অতঃপর আমি বলি আমি “চ্যানেল  সিক্স” এর সাংবাদিক,নড়াইল জেলা প্রতিনিধি,এসেছি বর্তমান চলমান নির্মানাধীন কালনা সেতুর বর্তমান কার্যক্রম অবস্থা অবস্থানের ছবি তুলে প্রচার করতে। নিরাপত্তা প্রহরী তখন বলে ভিতরে প্রবেশ করে ছবি তুলা নিষেধ এবং ছবি তুলতে ভিতরে প্রবেশ করতে স্যারের নিকট থেকে অনুমতি নিতে হবে,আরো বলে ” ছবি তুলে যদি প্রচার করেন,ইন্টারনেটে ছেড়ে বিভিন্ন লেখা-লেখি করেন এর জন্য প্রবেশ ও ছবি তুলা নিষেধ করেছেন,আমাদের স্যার।” আমি বলি, ” সাংবাদিকদের ভিতরে প্রবেশ করে ছবি তুলতে নিষেধ করেছে এরুপ সাক্ষাৎকার দেন। তখন নিরাপত্তা প্রহরী তার স্যারের নিকট ফোন করে আমার পরিচয়সহ উদ্দেশ্য বললে আমাকে গেইটের ভিতরে গিয়ে নিরাপত্তা প্রহরী অফিসে বসতে বলে। আমি বসার পর কাবুল সাহেব এসে আমাকে বলে ভিতর গিয়ে ছবি তুলে যদি প্রচার করেন এবং বিভিন্ন লেখা- লেখি করে ক্ষতি করেন এজন্য স্যার প্রবেশ করে ছবি তুলতে দিতে নিষেধ করেছেন।তিনি আমাকে অতঃপর চর কালনা RHD অফিসে যেয়ে অনুমতি আনতে বলেন। আমি নদী পার   হওয়ার পূর্বে খেয়ায় উঠে গিয়ে কাজের সঠিকতা ও অগ্রগতিতার সন্দেহতায় চলমান সেতু নির্মানাধীন অবস্থার ছবি তুলি,নদীতে দাড়িয়ে। আমাকে তখনও ছবি তুলতে নিষেধ করলে আমি মানিনা এবং ছবি তুলি এই কারনে যে,এটা উন্মুক্ত নদী পথ। তবে সাড়ে সাত মাসের অধিক সময় ধরে বর্তমান কাজের অগ্রগতি অবস্থা যথেষ্ট ও যথোপযুক্ত নহে এবং সঠিকতায় সন্দেহ বিদ্যমান।অতঃপর আমি RHD অফিসে গেলে এবং পরিচয় ও ছবি তুলার উদ্দেশ্য বললে আমাকে বলে আজ ছুটির দিনে কোন কর্মকর্তা অফিসে নেই আপনাকে অনুমতি দেওয়ার মত,আপনি কালনা সেতু নির্মানাধীন ঠিকাদারের সাইট অফিসে যান আমাদের সাইডে,গিয়ে অফিসের লোকের সঙ্গে কথা বলেন। কাজটি ঠিকাদার করছে,তারাই আপনাকে অনুমতি দিবে। অতঃপর আমি “Site Office TEKKEN-AML-YBC JV,Construction of 4 lane kalna bridge,CBRNNIP package -A1 অফিসে গেলে আমার পরিচয় ও কাজের বর্তমান অগ্রগতি কার্যাবলী অবস্থায় ছবি তুলে প্রচারের কথা বললে নিরাপত্তা প্রহরী আমাকে অফিসে বসায়ে তার স্যারের নিকট ফোন দিয়ে আমার উদ্দেশ্য ও পরিচয় বলে এবং আমি বলতে বলি যে,কালনা সেতু নির্মানাধীন চলমান কাজের গেইট থেকে পাঠিয়েছে এবং RHD অফিসের গেইট থেকে পাঠিয়েছে।অতঃপর  নিরাপত্তা প্রহরীর ফোন করা উক্ত অফিসার ফোন করে বলে আমাদের কাজের গেইট থেকে কেহ পাঠায়নি এবং কাবুলের পাঠানোকে প্রত্যাখ্যান করে বলে সকল কিছুই RHD এর উরাই সকল কিছু করবে ওদের কাছে যান।অতঃপর  আমি পুনরায় নদী পার হয়ে আসার সময় কজের অবস্থা দেখতে দেখতে নদী পার হই।আমি উভয়ের ব্যবহার ও জনগনের মঙ্গলার্থে নির্মানাধীন সেতুর বর্তমান কাজের ও সেতুর অবস্থায় ছবি তুলতে ও দেখতে না দেওয়ার ভিতরে উপযুক্ততায় মঙ্গলার্থে নির্মানাধীন সেতুর সঠিকতায় সন্দেহ বিদ্যমান যে কোনো অসদ বিষয়ে কাজ চলছে এবং সাংবাদিক পরিচয় প্রদানে সেতুটির বর্তমান অবস্থা দেখতে না দেওয়া ও ছবি তুলতে না দেওয়ার বিষয় অতীব গুরুত্বপূর্ণ দূর্নীতি কবলিত বিষয় প্রতিয়মান এবং নির্মানাধীন সেতুর সঠিকতার ক্ষেত্রে উপযুক্ত উপকরণাদিসহ সকল বিষয় সঠিক পর্যালোনা ও পরীক্ষা অত্যাবশ্যকীয়।