সম্পত্তি সংক্রান্ত বিরোধের জের বেগমগঞ্জে  বসত ঘরে হামলা ভাংচুর,লুট মহিলা সহ আহত ১০

প্রকাশিত

সেনবাগ(নোয়াখালী) প্রতিনিধি-
নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার রফিকুর গ্রামের সোমবার দুপুরে বাইন্না বাড়িতে সম্পত্তি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষ ফজলুল হকের ভাড়া করা লোকজন একটি নির্মানাধীন বসতঘর মাটির সঙ্গের গুড়িয়ে দিয়ে ব্যাপক লুটপাট চালিয়েছে। এসময় সন্ত্রাসীদের বাঁধা দেওয়ার চেষ্টা করলে তাঁরা ওই বাড়ির মৃত  রুহুল আমিনের ছেলে বেলাল হোসেন (৩০), তার স্ত্রী রুমি আক্তার (২৫) মানিক (২১), লিটান (১৯), কবির আহম্মদ  (২৮),সাইফুল ইসলাম (১৮), দেলোয়ার হোসেন (৪৫), ফারভেজ (২১), অজুন (৪৯) ও নুরনবী (৩০) এলোপাথাড়ি পিটিয়ে ও কুপিয়ে আহত করেছে।  পরে খবর পেয়ে বেগমগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে স্থানীয়দের সহযোগীতায় আহতদের  উদ্ধার করে সেনবাগ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করান।  এঘটনায়  রুমি আক্তার বাদী হয়ে বেগমগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
জানা গেছে বেগমগঞ্জ উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়নের রফিকুর গ্রামের বাইন্না বাড়ির মৃত রুহুল আমিনের ছেলে বেলাল হোসেন তার পৈত্রিক জায়গায় বসতঘর নির্মানের কাজ শুরু করে। এসময় অতকিতে পাশ্ববর্তী হাজ্বী বাড়ির  ফজলুর হক, তার ছেলে আনোয়ার হোসেন ও সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে ৩০/৪০ জনের একদল সন্ত্রাসী  দেশীয় অস্ত্র,লাঠিসোটা,লোহার রড়,দা- চেনা নিয়ে  হামলা চালিয়ে বাড়ির লোকজন সহ নিমান কজে নিয়োজিত শ্রমিকদের বেধড়ক পিটিয়ে ও এলোপাথাড়ী কুপিয়ে আহত করে। এসময় তাদের আত্নচিৎকারে  আশপাশ্বের লোকজন এগিয়ে এলে ফজলুর হকের ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী হাতবোমা (ককটেল) বিস্ফোরণ ঘটিয়ে পুরো এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করে।  এসময় রুহুল আমিনের ছেলে বেলাল তার স্ত্রী রুমি ও নিমান শ্রমিকরা পাশ্ববতী একটি বসত ঘরে আশ্রয় নিলে সন্ত্রাসী ওই বসত ঘরে হামলা তছনছ করে এবং ব্যপক নগদ ৩৫ হাজার টাকা,মোবাইফোন স্বণালঙ্কার সহজ ২ লাখ টাকার মালামাল লুটপাট করে নিয়ে যায় । এঘটনার সঙ্গে ফজলুল হোক ও তার কোন লকজন জড়িত নেয় বলে দাবি করেন তার ছেলে সাইফুল ইসলাম।