লালমনিরহাটে পৌর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩২ বছরের বরাদ্দকৃত জমি মালিকানায় বরাদ্দ দেওয়ার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত

লালমনিরহাট প্রতিনিধি – লালমনিরহাট পৌর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নামে ৩২ বছরের বরাদ্দকৃত জমি ব্যক্তি মালিকানায় বরাদ্দ দেওয়ার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছেন বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। গতকাল বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) বিকালে লালমনিরহাট পৌরসভা মিলয়নায়তনে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্টিত হয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, পৌর মেয়র রিয়াজুল ইসলাম রিন্টু, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ শাহ আলম ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর কিসমত আলীসহ স্থানীয় সাংবাদিকরা।
সংবাদ সম্মেলনে লালমনিরহাট পৌর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ শাহ আলম বলেন, ১৯৯৮ সালে গণপূর্ত বিভাগ, রংপুর-এর নির্বাহী প্রকৌশলী লালমনিরহাট সাপটানা মৌজার ৯৭/এ ও ৯৭/বি নং পরিত্যাক্ত বাড়ি দু’টি যার খতিয়ান নং- ২৩০৩, দাগ নং- ৩০৬৪, হোল্ডিং নং-২৩০২ মুলে লালমনিরহাট পৌর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নামে বরাদ্দ প্রদান করেন। যার স্মারক নং-৮২০, তাং ১৩-০৫-১৯৯৮।
যা স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের অনুমোদনক্রমে লালমনিরহাট পৌরসভা কর্তৃক পরিচালিত ১৯৮৭ সাল থেকে প্রায় ৩২ বছর যাবত বাড়ি দু’টিতে লালমনিরহাট পৌর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কোমলমতি শিক্ষার্থীর শিক্ষা কার্যক্রম চলছে। এমনকি নিয়মিত বাড়ি দু’টি ভাড়াও পরিশোধ করছেন বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।
পরর্বতীতে উক্ত বরাদ্দকৃত জমি ২০১৭ সালে গণপূর্ত বিভাগ, লালমনিরহাট-এর নির্বাহী প্রকৌশলী নতুন করে শ্রী দুলাল চন্দ্র কর্মকার, স্বর্ণকার পট্রি, লালমনিরহাট-এর নামে বরাদ্দ প্রদান করেন। যার স্মারক নং-২৫.৩৬.৫২০০.১৮৮.৭০৭/২(১২), তাং ১৮-১২-২০১৭। ফলে ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনায় চরম ভাবে ব্যাহত হচ্ছে। বিদ্যালয়ের নামে বরাদ্দকৃত জমি ব্যক্তি মালিকানায় বরাদ্দ বাতিলের দাবীতে (৩ জুন) জেলা প্রশাসক, লালমনিরহাটসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দায়ের করেছেন বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এতে কোন সুফল না পাওয়ায় মালিকানায় বরাদ্দ বাতিল করে পরিত্যাক্ত বাড়ি দু’টি স্থায়ী ভাবে পৌর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নামে বরাদ্দ দেওয়ার জোড় দাবী জানান।