ফরিদপুরে বায়োফর্টিফাইড জিংক রাইস ভেল্যু ত্রাক্টরস সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত

মাহবুব হোসেন পিয়াল,ফরিদপুর-

 

 

ফরিদপুর বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা আমরা কাজ করি (একেকে), এর আয়োজনে হারভেষ্ট প্লাস বাংলাদেশের সহযোগিতায় ফরিদপুর এবং রাজবাড়ী জেলার ২০টি কৃষক দলের লিডার, স্থানীয় ত্রগ্রিগেটর, মিলার ও চাতাল মালিক, পারসেস অফ পয়েন্ট সেন্টার মালিকদের অংশগ্রহনে বায়োফার্টিফাইড জিংক রাইস ভেল্যু চেইন ত্র্যাক্টরস সভা (লিংকেজ মিটিং) বৃহস্পতিবার ফরিদপুর শহরের কমলাপুরে একেকে’র হল রুমে অনুষ্ঠিত হয়েছে। একেকের নির্বাহী পরিচালক এম এ জলিলের সভাপতিত্বে বায়োফর্টিফাইড জিংক রাইস ভেল্যু চেইন ত্র্যাক্টরস সভায় অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ডিএ ই ফরিদপুরের অতিরিক্ত উপ- পরিচালক আশুতোষ কুমার বিশ্বাস , জেলা বাজার কর্মকর্তা মোঃ শাহাদৎ হোসেন, জেলা খাদ্য অফিসের কর্মকর্তা শেখ মোঃ এনামুল হক।
প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হারভেষ্ট প্লাস বাংলাদেশের এআরডিও জাহিদ হোসেন। এ ছাড়া একেকের প্রোগ্রাম ডিরেক্টর এস এম কুদ্দুস মোল্যা, একেকের প্রোগ্রাম কো অর্ডিনেটর এম এ কুদ্দুস, সিদ্দিকা ইয়াসমিন মিলি ও মোঃ রাশেদুজ্জামান মিরাজ সভায় বক্তব্য রাখেন। সভায় বায়োফর্টিফাইড জিংক রাইস ভেল্যু চেইন ত্র্যাক্টরস মিটিং (লিংকেজ মিটিং) জিংক রাইস মার্কেটিং করে কি ভাবে সাধারন জনগনের দোরগোরায়/সহজ লভ্যভাবে পৌছানো যায় সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। যেমন কৃষক জিংক রাইস উৎপাদন করবে এবং গ্রুপ লিডার, ত্রগ্রিগেটরদের সাথে আলাপ করে উৎপাদিত ধান ত্রগ্রিগেটরদের নিকট ধান বিক্রীর ব্যবস্থা করবে এবং ত্রগ্রিগেটরা ধান ক্রয় করে চাতাল মালিকদের নিকট বিক্রয় করবে তারপর চাতাল মালিকরা চাউল উৎপাদন করে প্যাকেটিং করে বিভিন্ন পারসেস পয়েন্ট সেন্টার দিবে এবং পারসেস পয়েন্ট সেন্টার সাধারন মানুষের নিকট বিক্রী করবে।