লামায় স্কুলছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে মামলা, অভিযুক্ত যুবক পলাতক

প্রকাশিত

লামা বান্দরবান প্রতিনিধি –
বান্দরবানের লামা পৌরসভার নয়া পাড়া গ্রামে দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ওই স্কুলছাত্রী ও তার মা লামা থানায় এসে মামলা করেছেন। তবে অভিযোগ উঠেছে, ধর্ষণে অভিযুক্ত যুবককে স্থানীয়দের সহযোগিতায় নিরাপদ স্থানে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। ওই যুবকের নাম মো. আমীর হোসেন (২৫)।সে নয়া পাড়া এলাকার মো.আবুল কালামের ছেলে।

স্কুল ছাত্রীর মা অভিযোগে উল্লেখ করে বলেন, আমার মেয়েকে বাড়ির পাশের মো. আমির হোসেন প্রায় সময় উত্ত্যক্ত করত। গত বৃহস্পতিবার দিনগত গভীর রাতে হঠাৎ আমার ঘুম ভেঙে গেলে দেখি আমার মেয়ে বিছানায় নেই। বাড়ির সব জায়গায় খোঁজাখুঁজি করি। মেয়েকে না পেয়ে এক পর্যায়ে বাড়ির সামনে আমির হোসেনের মাকে ঘুম থেকে ডেকে তুলি। পরে আমির হোসেনকে ডেকে তোলা হলে তাঁর কক্ষে মেয়েকে অজ্ঞান অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখি। আশপাশের লোকজনের সহায়তায় মেয়েকে উদ্ধার করে নিজ বাড়িতে নিয়ে যাই। সকালে জ্ঞান ফেরার পর মেয়ে জানায়, রাত দেড়টার দিকে সে ঘরের বাইরে শৌচাগারে যায়। সে সময় তার মুখ ও চোখ চেপে ধরে তুলে নিয়ে যায় আমির হোসেন। পরে আমির হোসেন তার থাকার কক্ষে মেয়েকে ধর্ষণ করে। সকালে ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ হোসেন বাদশা ও স্থানীয় সর্দার নুরুল হুদা লাভু চৌধুরীকে বিষয়টি জানাই। অবশেষে থানায় অভিযোগ করি।

 

 

এ ঘটনায় ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. হোসেন বাদশা সাংবাদিকদের বলেন শুক্রবার সকাল আটটার সময় স্কুল ছাত্রীর মা ও তার কয়েকজন আত্মীয় এসে প্রতিবেশী আমির হোসেন তার স্কুল পড়ুয়া মেয়েকে ধর্ষণ করেছে বলে জানায়। বিষয়টি নিয়ে আমির হোসেনের বাবা ও তার বড় ভাইয়ের সঙ্গে আলাপ করি। কিন্তু আমির হোসেন পলাতক থাকায় ঘটনা সমাধান করা যায়নি।

লামা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অপ্পেলা রাজু নাহা বলেন, প্রতিবেশী যুবক কর্তৃক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে।মামলা নং ১০/তারিখ:১৩/৯/২০১৯ইং। অভিযুক্ত আমির হোসেন কে গ্রেফতারের জন্য কাজ করছে পুলিশ।