পাহাড়ি জমি দখল করে রিসোর্ট, বিনিয়োগ রয়েছে জি কে শামীমের

প্রকাশিত

বান্দরবান প্রতিনিধি-

বান্দরবানে বিলাসবহুল পর্যটন রিসোর্ট সিলভান ওয়াই অ্যান্ড স্পাতে কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছেন আলোচিত যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা এস এম গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জি কে শামীম। প্রায় ২শ’ কোটি টাকা বিনিয়োগের টার্গেট নিয়ে বান্দরবান শহর থেকে পাঁচ কিলোমিটার দূরে চিম্বুক সড়কের পাশে প্রায় ৫০ একর এলাকা জুড়ে বিলাসবহুল এই রিসোর্টটি তৈরি করা হচ্ছে। রিসোর্টটির মালিকানায় যে ৯ জনের শেয়ার রয়েছে তার মধ্যে জি কে শামীম একজন।

প্রথম পর্যায়ে ১০ কোটি টাকার বিনিয়োগ দিয়ে রিসোর্টটির কার্যক্রম শুরু হয়। রিসোর্টটিতে নিরাপত্তায় একটি পুলিশ ক্যাম্পও করে দেয়া হচ্ছে। শহরের কাছে জেলা প্রশাসন পরিচালিত পর্যটন কেন্দ্র নীলাচলের পাশ ঘেঁষেই প্রাকৃতিক মনোরম পরিবেশে সিলভান ওয়াই রিসোর্ট নির্মিত হচ্ছে। তবে ইতিমধ্যে মারমা, ত্রিপুরা, বমসহ স্থানীয় পাহাড়ি সম্প্রদায় তাদের জায়গা-জমি দখলের অভিযোগ তুলেছেন রিসোর্টটির মালিকদের বিরুদ্ধে। জেলা প্রশাসন পাহাড়ি সম্প্রদায়ের অভিযোগগুলো খতিয়ে দেখছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আলোচিত যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা জি কে শামীম রিসোর্টটিতে কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছেন। রিসোর্টটিতে জি কে শামীমের ২ শতাংশ শেয়ার রয়েছে বলে জানা গেছে। গত শুক্রবার রাজধানীর নিকেতনের নিজ কার্যালয় থেকে যুবলীগের কেন্দ্রীয় সমবায় বিষয়ক সম্পাদক জি কে শামীমকে র‌্যাব অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করে। বিপুল পরিমাণ নগদ অর্থ, এফডিআর, মদ, অস্ত্র দেহরক্ষীসহ জি কে শামিমকে গ্রেফতার করা হয়। যুবলীগের সমবায় সম্পাদক হিসেবে পরিচয়দানকারী জি কে শামীমের পুরো নাম এস এম গোলাম কিবরিয়া শামীম। নারায়ণগঞ্জ শাখা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতিও তিনি।

রিসোর্টির বিরুদ্ধে জায়গা দখলের অভিযোগের বিষয়ে বান্দরবানের জেলা প্রশাসক দাউদুল ইসলাম জানিয়েছেন, অভিযোগ পাওয়ার পরই তদন্ত কমিটি করা হয়েছে এবং তদন্তের পরই প্রশাসন পরবর্তী সিদ্ধান্ত নিবে।